আজ মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৭

সদ্য প্রাপ্তঃ

*** ময়মনসিংহে সুটকেসের ভেতর যুবকের লাশ * ঢাবি অধিভুক্ত ৭ কলেজের মাস্টার্স পরীক্ষা স্থগিত * দিনাজপুরে বজ্রপাতে নিহত ৬ * দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় ছড়িয়ে পড়ছে 'সুপার ম্যালেরিয়া' * রিয়ালের পথের ইতি টানতে চান বেনজেমা * মধ্যবাড্ডায় অগ্নিকাণ্ডে মায়ের মৃত্যু, ২ সন্তান দগ্ধ * পূর্ণাঙ্গ কমিটি নেই: বাড়ছে ক্ষোভ, ঝিমিয়ে পড়া

Bangladesh Manobadhikar Foundation

Khan Air Travels

বিডিনিউজডেস্ক ডেস্ক | তারিখঃ ১০.১১.২০১৭

গত আট বছরের ইতিহাসে ২০১৭ সালে ভারতে সোনার চাহিদা সবচেয়ে কম বলে জানিয়েছে ওয়াল্ড গোল্ড কাউন্সিল (ডব্লিউজিসি)।

বৃহস্পতিবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ কথা জানায় ডব্লিউজিসি। বিশ্বে সোনার চাহিদার দিক দিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে ভারত। তালিকার শীর্ষে রয়েছে চীন। ২০১৭ সালে ভারতে ৬৫০ টন সোনা ব্যবহার করা হয়েছে। গত দশ বছরের গড় হিসেবে দেশটিতে সোনার বাৎসরিক চাহিদা ৮৪৫ টন।

ভারতে ডব্লিউজিসি’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোমাসুন্দরাম পিআর বলেন, ২০১৬ সালে ভারতে সোনার চাহিদা ছিল ৬৬৬.১ টন। সেপ্টেম্বরে নতুন গার্মেন্টস অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্যাক্স (জিএসটি) এবং অ্যান্টি-মানি লন্ডারিং আইনটি জুয়েলারী রিটেল লেনদেন সোনার ক্রেতাদেরকে বাধাগ্রস্ত করছে।

চলতি বছরের জুলাইয়ে নতুন কর আইনে সোনার ওপর কর ১.২ শতাংশ থেকে ৩ শতাংশে বৃদ্ধি পায়। সেপ্টেম্বরে কর্তৃপক্ষ জুয়েলার্সদের জন্য অ্যান্টি-মানি লন্ডারিং রুল জারি করে। তবে নতুন আইনটি সাময়িকভাবে স্থগিত রয়েছে।

ডব্লিউজিসি বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, গত বছরের তুলনায় চলতি বছরের জুলাই থেকে সেপ্টেম্বরে ভারতে সোনার চাহিদা ২৪ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে। তবে বিয়ে এবং দিওয়ালি উৎসবের কারণে অক্টোবর-ডিসেম্বরে স্বর্ণের চাহিদা বৃদ্ধি পেতে পারে বলে জানিয়েছেন সোমাসুন্দরাম। প্রসঙ্গত, ভারতের স্বর্ণের চাহিদার দুই-তৃতীয়াংশই পূরণ হয় গ্রামীণ এলাকা থেকে।