আজ বৃহস্পতিবার, ২৭ জুলাই, ২০১৭

সদ্য প্রাপ্তঃ

*** বনানীতে দুই তরুণীকে ধর্ষণের মামলায় আপন জুয়েলার্সের মালিকের ছেলে সাফাতসহ পাঁচজনের বিচার শুরু * ভিয়েতনাম থেকে ২০ হাজার মেট্রিক টন চালের প্রথম চালান নিয়ে বন্দরে ভিড়েছে জাহাজ * লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে সংঘর্ষে চালক নিহত * তিন দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে ঢাকায় পৌঁছেছেন শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা * সীতাকুণ্ডে নয় শিশুর মৃত্যু ও ৪৬ জনের অসুস্থতার কারণ এখনও শনাক্ত করা যায়নি * চিকিৎসকরা বলছেন, ত্রিপুরা পাড়ার অসুস্থ শিশুরা মারাত্মক অপুষ্টিতে ভুগছে * ৫৬ ইউনিয়ন পরিষদ এবং একটি করে পৌরসভা ও জেলা পরিষদের কয়েকটি ওয়ার্ডে ভোট চলছে * চট্টগ্রামে ইয়াবা ও চোলাই মদসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর * দুর্নীতির দায়ে ব্রাজিলের সাবেক প্রেসিডেন্ট লুলার সাড়ে নয় বছরের কারাদণ্ড

Bangladesh Manobadhikar Foundation

Khan Air Travels

অবশেষে চুরির ৩৪ কোটি টাকা ফেরত দিলেন সেই কিম

বিডিনিউজডেস্ক ডেস্ক | তারিখঃ ১৯.০৪.২০১৬

বাংলাদেশ ব্যাংকের চুরি যাওয়া অর্থের মধ্যে ২০ কোটি কোটি পেসো বা প্রায় ৩৪ কোটি টাকা ফেরত দিয়েছেন

ফিলিপাইনের বহুল আলোচিত ব্যবসায়ী ও ক্যাসিনো জাঙ্কেট কিম অং। দেশটির অ্যান্টি মানি লন্ডারিং কাউন্সিলের (এএমএলসি) কাছে সোমবার এ অর্থ ফেরত দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার বাংলাদেশ ব্যাংকের অর্থ চুরি ও তা পাচারের ঘটনার তদন্তে থাকা ফিলিপাইনের সিনেটের ব্লু রিবন কমিটির ষষ্ঠ শুনানিতে এএমএলসির নির্বাহী পরিচালক জুলিয়া বাকে আবাদ এ তথ্য জানিয়েছেন।

জুলিয়া বাকে আবাদ জানান, কিম অংয়ের ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান ইস্টার্ন হাওয়াই

 
লেইজার কোম্পানি লিমিটেড তাদের আইনজীবীর মাধ্যমে সোমবার ‘নিরাপদে রাখার জন্য’ এএমএলসির কাছে অর্থ জমা দিয়েছে।

শুনানিতে কমিটির চেয়ারম্যান সিনেটর তিওফিস্তো গুইংগোনা তৃতীয় বলেন, ‘আমি বুঝতে পারছি কিম অং সোমবার ২০ কোটি পেসো ( ৪৩ লাখ ৩৭ হাজার মার্কিন ডলার) ফেরত দিয়েছে। আমি কি সঠিক?’

জবাবে আবাদ বলেন, ‘বাংলাদেশের জনগণের কাছে নিরাপদে ফিরিয়ে দিতে সোমবার ইস্টার্ন হাওয়াই লেইজার কোম্পানি তাদের আইনজীবীর মাধ্যমে এএমএলসির কাছে ২০ কোটি পেসো জমা দিয়েছে।’

শুনানিতে উপস্থিত ব্যবসায়ী অংয়ের কাছে তখন সিনেটর গুইংগোনা জানতে চান, চুরি যাওয়া অর্থ বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রমাণিত হলে এর আগে তিনি যে ৪৫ কোটি পেসো ফেরত দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, এই ২০ কোটি পেসো তার অংশ কি না।

জবাবে কিম অং বলেন, ‘হ্যা, কারণ আমি এক মাসের মধ্যে ৪৫ কোটি পেসো ফেরত দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম।’

এর আগে সিনেট কমিটিকে কিম অং জানিয়েছিলেন, অর্থ চুরির সঙ্গে জড়িত চীনা ব্যবসায়ী শুহুয়া গাওকে তিনি ৪৫ কোটি পেসো ঋণ হিসেবে দিয়েছিলেন। বাংলাদেশ ব্যাংকের অর্থ চুরির পর গাও এই অর্থ তাকে ফিরিয়ে দিয়েছিলেন।