আজ বুধবার, ২৪ মে, ২০১৭

সদ্য প্রাপ্তঃ

*** যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টকে সফরের আমন্ত্রণ বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর * সাত দফা দাবিতে উত্তরবঙ্গে পণ্যবাহী যানবাহনের ধর্মঘট আরও ২৪ ঘণ্টা বাড়ছে * যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলায় বাস্তুহারা লীগের এক নেতাকে কুপিয়ে হত্যা, একজন আটক * সিনেটের ৩৫ জন শিক্ষক প্রতিনিধি নির্বাচনে ভোট দিচ্ছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকরা * সুন্দরবনে মধু সংগ্রহ করতে গিয়ে বাঘের থাবায় মৌয়ালের মৃত্যু * সৌদি আরবে শেখ হাসিনা ও ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যে শুভেচ্ছা বিনিময়

Bangladesh Manobadhikar Foundation

Khan Air Travels

‘বাংলাদেশের রাজস্ব আদায় পদ্ধতি রোল মডেল’

বিডিনিউজডেস্ক ডেস্ক | তারিখঃ ০৩.০৫.২০১৬

বাংলাদেশের রাজস্ব আদায় পদ্ধতি, বিধিবিধান বিশ্বের কাছে রোল মডেল বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান।

মঙ্গলবার (০৩ মে) সকালে আইডিবি ভবনে বৃহৎ করদাতা ইউনিট (এলটিইউ) উদ্যোগে মূল্য সংযোজন কর ও সম্পূরক শুল্ক আইন উদ্বুদ্ধকরণ বিষয়ক দু’দিনব্যাপী কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ মন্তব্য করেন।
 
এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, বাংলাদেশ বর্তমানে যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে পৃথিবীর বহু দেশ বাংলাদেশকে অনুসরণ করছে। বাংলাদেশ ইতোমধ্যে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। এ রোল মডেলের মধ্যে দেশের রাজস্ব আদায়ের পদ্ধতি, বিধিবিধান, প্রক্রিয়াও পরিচিতি লাভ করেছে।

ভারতে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ কর আদায়ের জন্য পৃথক পৃথক বোর্ড কাজ করছে। সেক্ষেত্রে সমন্বয় করা বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়ায়। বাংলাদেশে কাস্টমস, ভ্যাট ও আয়কর একীভূত বোর্ডের অধীনে কাজ করায় সে চ্যালেঞ্জ নেই, বলেন তিনি।
 
চেয়ারম্যান বলেন, উন্নয়নের নিয়ামক ও উন্নয়নের অক্সিজেন রাজস্ব। দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। এগিয়ে যাওয়ার পথে অভ্যন্তরীণ সম্পদ সংগ্রহের প্রয়াসকে উত্তরোত্তর জোরদার করতে হবে। সে লক্ষ্যে এনবিআর প্রয়াস চালাচ্ছে।
 
তিনি বলেন, ১ জুলাই থেকে রাজনৈতিক নির্দেশনার আলোকে যে নতুন মূসক বাস্তবায়ন করতে যাচ্ছি তা যুগপোযুগী। অভ্যন্তরীণ সম্পদ সংগ্রহের যে প্রয়াস, তার সঙ্গে নতুন আইন প্রর্বতনের প্রয়াস একীভূত হয়ে দেশে একটি ভিন্ন মাত্রা লাভ করেছে।
 
এসডিজি’র ১৭টি গোলের মধ্যে ১৭ নম্বর গোল হচ্ছে অভ্যন্তরীণ সম্পদ সংগ্রহ। বাংলাদেশে অভ্যন্তরীণ সম্পদ সংগ্রহের জন্য জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের মতো প্রতিষ্ঠানকে সক্রিয় করে তোলাই আমাদের লক্ষ্য। ১৭ নম্বর গোলের ওপর নির্ভর করবে বাকি গোলগুলো কিভাবে বাস্তবায়ন হবে।
 
কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী এলটিইউ’র ১৬৮টি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের উদ্দেশ্যে চেয়ারম্যান বলেন, নতুন মূসক আইন সম্পর্কে আপনাদের অভিমত, ভুলভ্রান্তি জানানো জরুরি। এ কর্মশালার মাধ্যমে যেসব পরামর্শ আসবে কর্মকর্তারা তা সংশোধনের চেষ্টা করবেন।
 
কর্মশালায় এলটিইউ’র কমিশনার শাহনাজ পারভীনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন এনবিআর সদস্য ব্যারিস্টার জাহাঙ্গীর হোসেন, মো. রেজাউল হাসান।