Print

বাণিজ্য বৃদ্ধিতে আগ্রহী কুয়েতের ব্যবসায়ীরা

বিডিনিউজডেস্ক ডেস্ক | তারিখঃ ০৫.০৫.২০১৬

বিনিয়োগ বৃদ্ধি ও দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য সম্প্রসারণে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন কুয়েতের শীর্ষ ব্যবসায়ীরা।

গতকাল বুধবার ঢাকার একটি হোটেলে এক মতবিনিময় সভায় কুয়েত চেম্বার্স অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (কেসিসিআই) বাণিজ্য প্রতিনিধিদল এবং ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার্স অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (এফবিসিসিআই) নেতারা এ আগ্রহের কথা জানান। সভায় দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য উন্নয়ন ও ব্যবসায়িক যোগাযোগ বাড়াতে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। কুয়েতের প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গী হিসেবে কুয়েতের এই ব্যবসায়ী প্রতিনিধিদল বাংলাদেশ সফর করছে।
বাংলাদেশের ক্রমবর্ধমান উন্নয়ন, বর্ধনশীল প্রবৃদ্ধি এবং কর্মক্ষম তরুণ জনগোষ্ঠীর বিষয়টি উল্লেখ করে সভায় এফবিসিসিআইয়ের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শফিউল ইসলাম (মহিউদ্দিন) কুয়েতের ব্যবসায়ীদেরকে বাংলাদেশে বিনিয়োগে আহ্বান জানান। তিনি বাংলাদেশে রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ অঞ্চলসহ জ্বালানি, অবকাঠামো, থিম পার্ক, ফ্যাশনশিল্প ও অন্যান্য খাতে বিনিয়োগ এবং যৌথ বিনিয়োগ করতে কুয়েতের ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানান। এ ছাড়া বাংলাদেশি কর্মীদের জন্য কুয়েতের ভিসা পদ্ধতি সহজীকরণ, কুয়েতের বাজারে বাংলাদেশি পণ্যের শুল্কমুক্ত ও কোটামুক্ত প্রবেশাধিকার এবং কুয়েত ও বাংলাদেশের ব্যবসায়ী সংগঠনের মধ্যে ‘যৌথ বিজনেস কাউন্সিল’ গঠনের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন এফবিসিসিআইয়ের নেতারা। কেসিসিআইয়ের ভাইস চেয়ারম্যান ও কুয়েতের প্রাক্তন বাণিজ্যমন্ত্রী আব্দুল ওয়াহাব এম. আল ওয়াযান বলেন, ‘বাংলাদেশ ও কুয়েতের মধ্যে বাণিজ্য বৃদ্ধির যথেষ্ট সুযোগ আছে। বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা কুয়েতের বাজারে আরো বেশি পণ্য রপ্তানির উদ্যোগ নিতে পারে।’ এ ছাড়া তিনি কুয়েতের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদেরকে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণের আহ্বান জানান। কুয়েত বিনিয়োগের জন্য বর্তমানে সম্পূর্ণ উন্মুক্ত উল্লেখ করে তিনি বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের সে দেশে বিনিয়োগের আহ্বান জানান। আব্দুল ওয়াহাব এম. আল ওয়াযানের নেতৃত্বে কুয়েতের বিভিন্ন খাতের ব্যবসায়ী নেতারা সভায় উপস্থিত ছিলেন। এফবিসিসিআইয়ের সহ-সভাপতি মাহবুবুল আলম এবং পরিচালকরা সভায় অংশ নেন। উল্লেখ্য যে, ২০১৪-২০১৫ অর্থবছরে বাংলাদেশ কুয়েতে ১৭.১৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের পণ্য রপ্তানি করেছে এবং কুয়েত থেকে ৮৫৯.৮৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের পণ্য আমদানি করেছে। বাংলাদেশ কুয়েতে মূলত কৃষিজাত পণ্য, নিটওয়্যার ও হিমায়িত খাদ্যসহ অন্যান্য পণ্য রপ্তানি করে থাকে।