Tuesday 6th of December 2016

সদ্য প্রাপ্তঃ

***অনুমোদন পেয়েছে ‘রূপপুর পরমাণু প্রকল্প’* বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমেছে *প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী শাকিল আর নেই(ইন্নালিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)***

Bangladesh Manobadhikar Foundation

Khan Air Travels

UCB Debit Credit Card

ফেসবুকে আয়! এফ-কমার্সে সফলতা আনতে ঢাকায় সম্মেলন

বিডিনিউজডেস্ক ডেস্ক | তারিখঃ ০৭.০৫.২০১৬

শনিবার ঢাকায় দুই দিন ব্যাপী শুরু হচ্ছে এফ-কমার্স সম্মেলন।

ফেসবুকে পেইজ খুলে নিজের পণ্যের বিপনন করেন এমন উদ্যোক্তাদের নিয়ে শুরু হচ্ছে এই সম্মেলন। উদ্যোগতারা বলছেন, ফেসবুকের পেইজের মাধ্যমে ব্যবসা ক্রমশই জনপ্রিয় হয়ে উঠলেও এখনও বাংলাদেশেরমত দেশগুলোতে লেনদেনের কিছু সমস্যা থেকেই গেছে। এ ধরণের ব্যবসাকে কীভাবে সফল করা যেতে পারে সেই বিষয়টিকে সামনে রেখেই তারা এ ধরণের সম্মেলনের আয়োজন করেছেন। এফ-কমার্স নিয়ে বিবিসি বাংলার সাথে কথা কথা হয় সম্মেলন এবং আয়োজক প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা মাহাদী হাসান সাগরের সাথে।তিনি বলেন, ‘যারা ওয়েব সাইটের মাধ্যমে ব্যবসা পরিচালনা করছেন, সেগুলোকে ই-কর্মাস বলা হয়। আর ফেসবুক পেইজের মাধ্যমে যারা অর্ডার সংগ্রহ করছেন এবং ডেলিভারি দিচ্ছেন তাদেরকে বলা হচ্ছে এফ-কমার্স। ছাত্র, চাকুরিজীবীসহ যারা এফ-কমার্স বিজনেস করছে এবং যারা করতে আগ্রহী তাদের জন্য আমাদের এই প্রচেষ্টা।’এফ কমার্সের উদ্যোক্তা বাংলাদেশে কেমন?
প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বাংলাদেশে এখন প্রায় ৫ থেকে ১০ হাজারেরমত মানুষ নিজের পেইজের মাধ্যমে এফ-কমার্স পরিচালনা করছে। এই ৫ থেকে ১০ হাজার উদ্যোক্তা প্রতিমাসে গড়ে প্রায় ৫০ হাজার টাকার লেনদেন করছে।
আজ থেকে ২ দিনের যে সম্মেলন করতে যাচ্ছেন সেখানে কতজন উদ্যোক্তা অংশগ্রহণ করবেন বলে আপনার নিশ্চিত হয়েছেন?
তিনি বলেন, ‘গত সম্মেলনে প্রায় ৯শ’ উদ্যোক্তা আংশগ্রহণ করেছিল। তারমধ্যে ব্যবসায়ী ছিলো ৩শ’ ৫০ জনের ওপরে। এবার আমরা প্রায় ২ হাজার মানুষের অংশগ্রহণ প্রত্যাশা করছি। যারমধ্যে ৫শ’র ওপরে এফ-কমার্স ব্যবসায়ী অংশগ্রহণ করবেন বলে ধারণা।’
যারা এফ-কমার্সের সাথে জড়িত তারা বিশেষত কোন ধরণের পণ্য নিয়ে ব্যবসা করছেন বা বেশি সফল হচ্ছেন?
‘এফ-কমার্সে নারী উদ্যোগতাদের অংশগ্রহণ বেশি। নিজেই বিপনন করে তা বিক্রি করার প্রবনতা এফ-কমার্সে কম। এখন মূলত ট্রেডিং বিজনেসটা বেশি। নিজেই পণ্য বিপনন করে তা বিক্রি করছে এমন উদ্যোগতার সংখ্যা কম তবে সাধারনত শপিংমলগুলোতে যে ধরণের নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য পাওয়া যায় সেগুলোকেই এফ-কমার্সের মাধ্যমে বিক্রি করে প্রায় ৮০ ভাগ উদ্যোগতা। এছাড়া ব্যতিক্রমধর্মী কিছু উদ্যোগ আছে যেমন, নিজেরাই ফার্নিচার তৈরি করে সেগুলো তারা ফেসবুকের মাধ্যমে প্রচারণা চালাচ্ছে এবং বিক্রি করছে।’
ফেসবুকে পেইজ খুলে সেটাকে স্বক্রিয় রাখার প্রবণতা কি শতভাগ হচ্ছে? না-কি আনেকেই পরবর্তীতে পেইজ বন্ধও করে দিচ্ছেন?
তিনি বলেন, ‘মূলত পেইজ প্রমোশন বা টেকনিক্যাল সাপোর্টের ব্যাপারে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই উদ্যোক্তারা টেকনিক্যাল এক্সপার্টদের হাতে তুলে দিচ্ছেন। উদ্যোগতারা কেবল পণ্যের কালেকশন, ছবি তোলা, অর্ডার রিসিভ করা এবং সেটা ডেলিভারি দেয়ার কাজ করছেন। পণ্যের ক্যাম্পেইনগুলো সচল রাখতে উদ্যোক্তারা কোন না কোন টেকনিক্যাল ফার্ম বা এজেন্সিকে দায়িত্ব দিয়ে থাকেন।’