আজ শনিবার, ২২ জুলাই, ২০১৭

সদ্য প্রাপ্তঃ

*** বনানীতে দুই তরুণীকে ধর্ষণের মামলায় আপন জুয়েলার্সের মালিকের ছেলে সাফাতসহ পাঁচজনের বিচার শুরু * ভিয়েতনাম থেকে ২০ হাজার মেট্রিক টন চালের প্রথম চালান নিয়ে বন্দরে ভিড়েছে জাহাজ * লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে সংঘর্ষে চালক নিহত * তিন দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে ঢাকায় পৌঁছেছেন শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা * সীতাকুণ্ডে নয় শিশুর মৃত্যু ও ৪৬ জনের অসুস্থতার কারণ এখনও শনাক্ত করা যায়নি * চিকিৎসকরা বলছেন, ত্রিপুরা পাড়ার অসুস্থ শিশুরা মারাত্মক অপুষ্টিতে ভুগছে * ৫৬ ইউনিয়ন পরিষদ এবং একটি করে পৌরসভা ও জেলা পরিষদের কয়েকটি ওয়ার্ডে ভোট চলছে * চট্টগ্রামে ইয়াবা ও চোলাই মদসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর * দুর্নীতির দায়ে ব্রাজিলের সাবেক প্রেসিডেন্ট লুলার সাড়ে নয় বছরের কারাদণ্ড

Bangladesh Manobadhikar Foundation

Khan Air Travels

অর্থ উদ্ধারে যৌথ উদ্যোগ নেবে তিন পক্ষ

বিডিনিউজডেস্ক ডেস্ক | তারিখঃ ১১.০৫.২০১৬

বাংলাদেশ ব্যাংকের চুরি যাওয়া রিজার্ভের অর্থ উদ্ধারে একযোগে কাজ করবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক, ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্ক বা নিউইয়র্ক ফেড এবং আর্থিক

লেনদেনের বার্তা আদান-প্রদানকারী আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান সুইফট।
সুইজারল্যান্ডে ব্যাসেলে গতরাতে এক ত্রি-পক্ষীয় বৈঠক শেষে নিউইয়র্ক ফেডের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত যৌথ বিবৃতিতে এ কথা জানানো হয়েছে।
বৈঠকে ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্ক বা নিউইয়র্ক ফেডের প্রেসিডেন্ট উইলিয়াম ডাডলি, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির এবং সুইফট প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।
বৈঠকে উপস্থিত সব পক্ষই রিজার্ভের অর্থ চুরি ও অর্থ উদ্ধার---এ দুটি বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।

চুরি যাওয়া অর্থ উদ্ধারে পরস্পরের মধ্যে তথ্য বিনিময় এবং দোষীদের বিচারের আওতায় আনতে একযোগে কাজ করবে তিন পক্ষ
তাতে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাইবার এবং অন্যান্য কাঠামোগত নিরাপত্তার ত্রুটি নিয়ে আলোচনা হয়।
এছাড়া পরস্পরের মধ্যে তথ্য বিনিময়, চুরি যাওয়া অর্থ উদ্ধার এবং দোষীদের বিচারের আওতায় আনতে এই তিনপক্ষ একযোগে কাজ করতে সম্মত হয়েছে বলে জানাচ্ছে নিউইয়র্ক ফেডের ঐ যৌথ বিবৃতি।
এর আগে রোববার আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা রয়টার্স বাংলাদেশ ব্যাংক ও বাংলাদেশের গোয়েন্দা পুলিশের কর্মকর্তাদের উদ্ধৃত করে এক প্রতিবেদনে বলে যে সুইফ্‌ট টেকনিশিয়ানদের অবহেলার কারণে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সার্ভার অরক্ষিত হয়ে পড়েছিল।
এরপর নিজেদের ওয়েবসাইটে এক বিবৃতি প্রকাশ করে সুইফট দাবী করে বাংলাদেশ ব্যাংকের সার্ভারের নিরাপত্তা রক্ষার দায়িত্ব তাদের নয়, বরং বাংলাদেশ ব্যাংকের নিজের সেটি নিশ্চিত করতে হবে।
সুইফট ব্যবহারকারী অন্য সব প্রতিষ্ঠানের মতই পাসওয়ার্ড থেকে শুরু করে অভ্যন্তরীণ সব ব্যাংকিং পদ্ধতির নিরাপত্তা রক্ষার দায়িত্ব বাংলাদেশ ব্যাংকেরই ছিল বলে সুইফট বিবৃতিতে উল্লেখ করে।