মুদ্রণ

রাঙামাটিতে গাইড ও দুই পর্যটককে অপহরণ

বিডিনিউজডেস্ক.কম | তারিখঃ ০৫.১০.২০১৫

রাঙামাটি-ভারত সীমান্তবর্তী অঞ্চল সিদ্ধুপাড়া থেকে বান্দরবানের একজন ম্রো গাইডসহ দুই পর্যটককে অপহরণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

গতকাল রোববার দুপুর আড়াইটার দিকে তাঁদের অপহরণ করা হয়। অপহৃত ব্যক্তিরা হলেন বান্দরবানের রুমা উপজেলার ট্যুরিস্ট গাইড প্রাচিংহাই ম্রো এবং ঢাকা থেকে বেড়াতে যাওয়া পর্যটক জোবায়ের ও মুন্না। এ সময় অপহরণকারীরা পথ দেখিয়ে দিতে দুই স্থানীয় যুবককে জিম্মি করে নিয়ে গেলেও ভারতীয় সীমান্তবর্তী অঞ্চলের কাছাকাছি গিয়ে তাঁদের ছেড়ে দেয়। পুলিশের দাবি, মিয়ানমারের বিচ্ছিন্নতাবাদী গ্রুপের সদস্যরা তাঁদের অপহরণ করেছে।রুমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শরিফুল ইসলাম জানান, বান্দরবানের রুমা থেকে গাইড প্রাচিংহাই ম্রোকে নিয়ে রাইক্ষ্যংপুকুর লেক দেখতে যান ঢাকার দুজন পর্যটক। তাঁরা রাঙামাটির বিলাইছড়ি উপজেলার বড়তলী ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের সিদ্ধুপাড়া এলাকায় গেলে মিয়ানমারের বিচ্ছিন্নতাবাদী গ্রুপের সদস্যরা তাঁদের অস্ত্রের মুখে অপহরণ করে। এ বিষয়ে রাঙামাটির বড়তলী ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান আতমং মারমা ওই দুই যুবকের বরাত দিয়ে জানান, বড়তলী ইউনিয়নের সিদ্ধুপাড়া থেকে অস্ত্রের মুখে গতকাল দুপুরে একজন গাইড এবং দুজন পর্যটককে অপহরণ করে নিয়ে গেছে বিচ্ছিন্নতাবাদী গ্রুপের সদস্যরা। অপহরণকারীরা ভারত সীমান্তের রাস্তা দেখিয়ে দিতে সিদ্ধুপাড়া থেকে স্থানীয় দুই যুবককেও ধরে নিয়ে যায়। ভারত সীমান্তবর্তী অঞ্চলের কাছাকাছি নিয়ে গিয়ে স্থানীয় দুজন যুবককে ছেড়ে দেয় তারা। অপহরণকারী সন্ত্রাসীরা মিয়ানমারের রাখাইন ভাষায় কথা বলেছে বলেও জানান এ জনপ্রতিনিধি। সেনাবাহিনীর দায়িত্বশীল একজন কর্মকর্তা জানান, অপহৃতদের উদ্ধারে নিরাপত্তা বাহিনী ভারত-মিয়ানমার সীমান্তবর্তী অঞ্চলগুলোতে অভিযান চালাচ্ছে। এদিকে, অপহরণকারীদের মুক্তির দাবিতে আজ সোমবার সকালে বান্দরবানের রুমায় পাহাড়িরা বিক্ষোভ মিছিল করেছেন।