Monday 5th of December 2016

সদ্য প্রাপ্তঃ

***নারায়ণগঞ্জ সিটিতে মেয়র পদে প্রতীক বরাদ্দ : আওয়ামী লীগের সেলিনা হায়াৎ আইভী নৌকা, বিপ্লীব ওয়ার্কার্স পার্টির মাহবুবুর রহমান কোদাল, এলডিপির কামাল প্রধান ছাতা পেয়েছেন***

Bangladesh Manobadhikar Foundation

Khan Air Travels

UCB Debit Credit Card

স্মার্টফোন তৈরি উদ্যোক্তারা চাইলে ,সরকার প্রস্তুত

বিডিনিউজডেস্ক ডেস্ক | তারিখঃ ১৬.০৫.২০১৬

দেশীয় উদ্যোক্তারা স্মার্টফোন তৈরির উদ্যোগ নিলে সরকার তাদের সর্বোচ্চ সহযোগিতা করতে প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু।
 

তিনি বলেন, দেশে স্মার্টফোন তৈরি করা কঠিন কিছু নয়। আমরা প্রযুক্তিতে অনেক দূর এগিয়ে আছি। এখন প্রয়োজন এর সঠিক ব্যবহার। সুযোগের সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করলেই স্মার্টফোনে দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশেও রপ্তানি করা সম্ভব।
 
মন্ত্রী বলেন, উদ্যোক্তারা আগে শিল্পকারখানা গড়ে তোলেন। তারপর সেখানে কি লাগবে অথবা কোন প্রতিবন্ধকতা রয়েছে কি না সেটি দেখবে সরকারের। এমনকি কাঁচামালের যোগানও সরকার দেবে। 
 
সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে দেশীয় উদ্যোগে মোবাইল ফোন শিল্প গড়ে তোলার এখনি উপযুক্ত সময় শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও সংঘ দিবস-২০১৬ উপলক্ষে বাংলাদেশ মোবাইল ফোন ব্যবসায়ী এসোসিয়েশন (বিএমবিএ) এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
 
অনুষ্ঠানে এফবিসিসিআই প্রেসিডেন্ট আবদুল মাতলুব আহমাদ বলেন, ভারত, ভিয়েতনাম যদি নিজস্ব প্রযুক্তিতে স্মার্টফোন তৈরি করতে পারে আমরা কেন পারবো না? আমরা দেশীয় উদ্যোগে সকল ডিভাইস তৈরি করতে পারি এবং তা প্রমাণের সুযোগ করে দেয়ার দায়িত্ব সরকারের।
 
এফবিসিসিআই সাবেক সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দীন আহমাদ বলেন, যেকোনো দেশ উন্নত হয় তার দেশীয় শিল্পখাতকে উন্নত করার মাধ্যমে। আমাদের দেশের শিল্পখাতকে উন্নত করার জন্য আমাদেরকেই ভূমিকা রাখতে হবে। দেশে যদি ১২ কোটি সেট ব্যবহার হতে পারে তাহলে ১২ কোটি সেট তৈরি করা যাবে না কেন?
 
বিটিআরসির সাবেক চেয়ারম্যান সৈয়দ মার্গোব মোর্শেদ বলেন, দেশীয় উদ্যোগে স্মার্টফোন তৈরি হোক সেটি অনেক পুরনো দাবি। সরকারের উচিত সেটি কার্যকরে গুরুত্ব দেয়া।
 
আইসিটি বিশেষজ্ঞ মোস্তফা জব্বার বলেন, ডিজিটাল ডিবাইস তৈরির কাঁচামাল বিদেশ থেকে আমদানি করে দেশে এ সকল ডিবাইস তৈরি করতে হবে। এর জন্য সরকারকে শুল্কমুক্ত ডিবাইস আমদানির ব্যবস্থা করে দিতে  হবে।
 
বিএমবিএ-এর প্রেসিডেন্ট ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন জিটুর সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন, এফবিসিসিআই পরিচালক হারুন-অর-রশিদসহ আইটি বিশেষজ্ঞরা।