আজ মঙ্গলবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৭

সদ্য প্রাপ্তঃ

*** ময়মনসিংহে সুটকেসের ভেতর যুবকের লাশ * ঢাবি অধিভুক্ত ৭ কলেজের মাস্টার্স পরীক্ষা স্থগিত * দিনাজপুরে বজ্রপাতে নিহত ৬ * দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় ছড়িয়ে পড়ছে 'সুপার ম্যালেরিয়া' * রিয়ালের পথের ইতি টানতে চান বেনজেমা * মধ্যবাড্ডায় অগ্নিকাণ্ডে মায়ের মৃত্যু, ২ সন্তান দগ্ধ * পূর্ণাঙ্গ কমিটি নেই: বাড়ছে ক্ষোভ, ঝিমিয়ে পড়া

Bangladesh Manobadhikar Foundation

Khan Air Travels

সন্ধিহানে – হ্যাকাররা কী পরিমান অর্থ চুরি করেছে

নাজমা বেবী || সহ-সম্পাদক

বিডিনিউজডেস্ক.কম

চারটি বানিজ্যিক ব্যাংকও সাইবার আক্রমনের স্বীকার।

বাংলাদেশ ব্যাংকের মতো আরো একটি ব্যাংকের নিরাপত্তা ভেদ করে ম্যাকওয়ার ব্যবহারের মাধ্যমে তথ্য চুরির কথা জানিয়েছে আন্তর্জাতিকি আন্তঃব্যাংক লেনদেন প্রতিষ্ঠান সুইফ্ট। তিনটি বানিজ্যিক ব্যংকের ডেটা চুরি করেছে তুরস্কের একটি হ্যাকার দল, জিানিয়েছে ‘ডেটাব্রি টুডে’যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক একটি সাইবার নিরাপত্তা বিষয়ক ওয়েবসাইট। আর ব্যাংক তিনটি হলো ডাচবাংলা,সিটিও ট্রাষ্ট ব্যাংক। যে হ্যাকার দল যেভাবে অর্থ আত্মসাত করেছে তাদের ব্যাংকিং পদ্ধতি সম্পর্কে গভীর ও অত্যাধুনিক ধারনা রয়েছে। যেসব ব্যাংকে ম্যালওয়ার হামলা হচ্ছে ব্যাংকের আভ্যন্তরীন লোক এতে জড়িত আছে বলে ধারনা করা হচ্ছে। এদিকে তুরস্কের হ্যাকার দল বাংলাদেশের তিনটি ব্যাংকের তথ্য চুরি করে টুইটারে প্রকাশ করে দিয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরি হওয়া ৮১ মিলিয়ন ডলারের মধ্যে ৫০ মিলিয়ন ডলারের কোন হদিস নেই।

কিঞ্চিত পরিমান ফেরত এলেও বাকিটা কি ফেরত আসবে এই নিয়ে সংশ্লিষ্টরা সন্ধিহান। সরকার গঠিত বিশেষ তদন্ত কমিটির প্রধান ডঃ মুহম্মদ ফরাস উদ্দিন বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির ঘটনায় সুইফ্টকে সরাসরি দায়ী করেছেন। রোববার তিনি মিডিয়াকে বলেন যে, সুইফট আরটিজিএসের সঙ্গে সংযোগ দেয়ার ফলে এটি ঘটেছে। ডঃ মুহম্মদ ফরাস উদ্দিন রিজার্ভ চুরির ঘটনায় যেমন সুইফটকে দায়ী করেছেন তেমনি বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তাদের অসতর্কতা, অসাবধানতাও দায়িত্বহীনতার অভাব ছিল বলে জানিয়েছেন।গভর্নর ফজলে কবির গত সপ্তাহে সুইজারল্যান্ডের ব্যাসেল শহরে যান, সেখানে ফেডারেল ব্যাংক, সুইফট ও বাংলাদেশ ব্যাংকের ত্রিপক্ষীয় বৈঠক হওয়ার কথা ছিল।

বৈঠকে ফেডারেল ব্যাংকের প্রেসিডেন্ট উইলিয়াম ডুডলি উপস্থিত হলেও সুইফটের কোন কর্মকর্তাআসেনি। ফেডারেল ব্যাংকের পক্ষথেকে বাংলাদেশর সব ধরনের সহযোগিতা আশ্বাস দেয়া হয়। এবং অর্থ উদ্ধারে ভুমিকা নেয়ার প্রতিশ্রুতি ও দিয়েছেন উইলিয়াম ডুডলি। কিন্তু সুইফট এ ধরনের কোন আলোচনায় রাজি হয়নি।তবে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক শুভংকর সাহা ফেডারেল ব্যাংক ও সুইফট কতৃপক্ষের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে একথা জানিয়েছেন যে, তারা বাংলাদেশের লেনদেন সাপেক্ষে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনায় প্রতিশ্রুত এবং পুরো অর্থ উদ্ধারের পূর্ন সহযোগিতা করছে।রোববার জাতীয় সংসদ ভবনে সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে রিজার্ভ চুরির।বিষয়টি নিয়ে আলোচনা সাপেক্ষে জনগনের কষ্টার্জিত চুরির ঘটনায় জড়িতদের খুজে।বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়েছেন। সরকার তথা সকল মেহনতি মানুষের।কথা মাথায় রেখে সকল উর্ধতন কর্মকর্তাদের বিশেষ ভাবে তদন্তের প্রয়োজন আছে।বলে মনে করে দেশের আপামোর জনসমষ্টি।