Print

আগামীকাল মুক্তি পাচ্ছে হ্যাঙ্কস-স্পিলবার্গ জুটির নতুন ছবি
বিনোদন ডেস্ক | তারিখঃ ১৫.১০.২০১৫

দীর্ঘ প্রায় এক দশকেরও বেশি সময় পর হলিউডের রূপালি পর্দা কাঁপাতে আবারও জুটি বাঁধলেন অস্কার জয়ী কিংবদন্তী অভিনেতা টম হ্যাঙ্কস এবং পরিচালক স্টিভেন স্পিলবার্গ।

হলিউডে এই জুটির ছবি মানেই চলচ্চিত্র বোদ্ধাদের জন্য এক ভিন্ন রসদ, আলোচনার অন্যতম কেন্দ্রবিন্দু। সেভিং প্রাইভেট রায়ান, ক্যাচ মি ইফ ইউ ক্যান এবং সবশেষ দ্য টার্মিনালের পর আগামীকাল (শুক্রবার) মুক্তি পেতে যাচ্ছে এই জুটির নতুন চলচ্চিত্র "ব্রিজ অব স্পাইস"। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর গোটা বিশ্বে ক্ষমতা দখল নিয়ে চলা স্নায়ুযুদ্ধের কাহিনী অবলম্বনে নির্মাণ করা হয়েছে এই চলচ্চিত্রটি।
ঘটনাটি ১৯৬০ সালের। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শেষে গোটা বিশ্বে তখন ক্ষমতা দখল নিয়ে চলছে স্নায়ুযুদ্ধ। ঠিক এমন সময়ে, ইউ-টু নামের এক মার্কিন গোয়েন্দা বিমান ভূপাতিত হয় সোভিয়েত ইউনিয়নে। ধরা পড়েন এর পাইলট ফ্রান্সিস গ্যারি পাওয়ার্স। পাওয়ার্সকে ছাড়িয়ে আনতে সমঝোতার দায়িত্ব দেয়া হয় ব্রুকলিনের আইনজীবী জেমস বি. ডোনোভানকে। আর এমন সত্য ঘটনা অবলম্বনেই নির্মাণ করা হয়েছে ব্রিজ অব স্পাইস চলচ্চিত্রটি।চলচ্চিত্রটির কেন্দ্রীয় চরিত্র জেমস বি. ডোনোভানের ভূমিকায় দেখা যাবে দুই বারের অস্কার জয়ী অভিনেতা টম হ্যাঙ্কসকে। এছাড়াও এতে আরও অভিনয় করেছেন মার্ক রাইলেন্স, অ্যালান অ্যালডা, অস্টিন স্টোয়েলসহ আরও অনেকে।ফক্স টু থাউজেন্ড পিকচার্স ও ড্রিমওয়ার্কস পিকচার্সের এর যৌথ প্রযোজনায় এবং টুয়েন্টিয়েথ সেঞ্চুরি ফক্স ও ওয়াল্ট ডিজনি স্টুডিওস এর পরিবেশনায় ব্রিজ অব স্পাইস ছবিটির চিত্রনাট্য যৌথভাবে লিখেছেন ম্যাট শারম্যান এবং কোয়েন ভ্রাতৃদ্বয়।
মাত্র ৪ কোটি মার্কিন ডলার খরচে নির্মিত স্বল্প ব্যায়ের এই চলচ্চিত্রটি এরইমধ্যে গত সপ্তাহে প্রদর্শিত হয়েছে ৫৩তম নিউইয়র্ক চলচ্চিত্র উৎসবে। আর তাতে এর ভূয়সী প্রশংসা করেছেন সমালোচকরা।