Nabodhara Real Estate Ltd.

Khan Air Travels

Star Cure

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | তারিখঃ ৩০.০৫.২০১৯

দ্বিতীয় দফায় দায়িত্ব গ্রহণের পথে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আজ বৃহস্পতিবার শপথ গ্রহণ করবেন।

দিল্লিতে ‘রাষ্ট্রপতি ভবনে’ সন্ধ্যা ৭টায় তাঁকে শপথ করাবেন ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। একই সঙ্গে মোদির নতুন মন্ত্রিসভার সদস্যরাও শপথ নেবেন। এ শপথ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ গতকাল বুধবার দিল্লি গেছেন। এ ছাড়া বিমসটেকভুক্ত দেশগুলোর প্রতিনিধিসহ আরো কয়েকটি দেশের রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধানরা যোগ দেবেন। শপথ অনুষ্ঠানে থাকবেন দেশটির সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এবং বিরোধী দলের প্রধান নেতারাও। তবে ‘শপথ নিয়ে রাজনীতি’ করার অভিযোগে তা বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

অন্যদিকে মোদির মন্ত্রিসভায় কারা থাকছেন তা গতকাল পর্যন্ত গোপন রেখেছে সদ্যঃসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে বিপুলভাবে বিজয়ী বিজেপি। এর মধ্যে চাউর হয়েছে, বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ অর্থমন্ত্রীর চেয়ারে বসতে যাচ্ছেন।

নতুন মন্ত্রিসভা, অমিত শাহ হতে পারেন অর্থমন্ত্রী : আজ মোদির সঙ্গে তাঁর নতুন মন্ত্রীরা শপথ নেবেন বলে নিশ্চিত করা হলেও তাঁদের নাম গোপন রাখা হয়েছে। তবে প্রধানমন্ত্রী মোদি ও তাঁর বিশ্বস্ত সহযোগী বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ দুজনই তরুণদের মন্ত্রিসভায় আনতে আগ্রহী বলে জানা গেছে। মোদির সঙ্গে তাঁর ৬৫ জন মন্ত্রী শপথ নিতে পারেন।

এরই মধ্যে জানাজানি হয়েছে, অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি স্বাস্থ্যগত কারণে বাদ পড়ছেন। ধারণা করা হচ্ছে, রেলওয়ে ও কয়লা বিষয়ক মন্ত্রী পীযূষ গয়াল পেতে পারেন এশিয়ার তৃতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির দেশটির অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব। কারণ অরুণ জেটলি অসুস্থ হয়ে পড়লে দুু-দুবার ভারপ্রাপ্ত হিসেবে অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছেন গয়াল। স্বাস্থ্যগত কারণে নির্বাচন না করা বিদায়ী পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজও মন্ত্রিসভা থেকে বাদ পড়তে যাচ্ছেন। নতুন মন্ত্রিসভায় বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহও স্থান পেতে পারেন বলে ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে। তিনি অর্থমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন বলে দলটির সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে কলকাতাভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম ‘এই সময়’।

জেটলির চিঠি : গতকাল বিদায়ী অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে লিখিতভাবে জানিয়েছেন, তিনি নতুন সরকারে আর কোনো দায়িত্বই নিতে পারবেন না। ডায়াবেটিস ও কিডনি রোগে আক্রান্ত জেটলি শারীরিক অসুস্থতার কারণেই এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে চিঠিতে উল্লেখ করেছেন। পরে চিঠির একটি কপি নিজেই টুইটারেও পোস্ট করেছেন তিনি।

সোনিয়া গান্ধী যাবেন শপথ অনুষ্ঠানে : কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধী মোদির শপথ অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন বলে গতকাল নিশ্চিত করেছেন।

যাবেন না মমতা : গতকাল পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় টুইটারে এক পোস্টে জানিয়েছেন, শপথ অনুষ্ঠান নিয়ে বিজেপি রাজনীতি করায় তিনি তাতে যোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেও তা পরিবর্তন করেছেন। পশ্চিমবঙ্গে ‘রাজনৈতিক’ কারণে নিহত ৫৪ জন বিজেপি সমর্থকের পরিবারকে এই শপথ অনুষ্ঠানে নিমন্ত্রণ করার প্রতিবাদে তিনি এ সিদ্ধান্ত নেন। এ প্রসঙ্গে ক্ষুব্ধ মমতা বলেন, ‘এটি সম্পূর্ণ মিথ্যা। বাংলায় কোনো রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেনি। ওই সব হত্যাকাণ্ড ব্যক্তিগত শত্রুতা, পারিবারিক দ্বন্দ্ব বা অন্য কোনো বিরোধের কারণে হয়ে থাকতে পারে।’

রাষ্ট্রপতি যোগ দেবেন, থাকছেন অন্য বিদেশি অতিথিরাও : এদিকে মোদির শপথ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গতকাল সন্ধ্যায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের একটি বিশেষ ফ্লাইটে নয়াদিল্লি পৌঁছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। বিমানবন্দরে তাঁকে অভ্যর্থনা জানান ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব টি এস ত্রিমূর্তি। সফরে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে তাঁর স্ত্রী রাশিদা খানমও রয়েছেন। রয়েছেন মন্ত্রিসভার জ্যেষ্ঠতম সদস্য মুক্তিযুদ্ধবিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হকও।

এ ছাড়া বিদেশি অতিথির মধ্যে শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাইত্রিপালা সিরিসেনা, কিরগিজ প্রেসিডেন্ট সুরুনবে জিনবেকভ, মিয়ানমারের প্রেসিডেন্ট উ উইন মিয়ান্ট, মরিশাসর প্রধানমন্ত্রী প্রভিন্দ কুমার জুগনথ, নেপালি প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা অলি, ভুটানের প্রধানমন্ত্রী ড. লোতে শেরিং ও থাইল্যান্ডের বিশেষ দূত গ্রিসাদা বুনরাচ। সূত্র : এনডিটিভি, আনন্দবাজার, এই সময়, বাসস।