মুদ্রণ

বসুন্ধরা গ্রুপের এমডি'র সাথে ওবামার উপদেষ্টার সাক্ষাৎ

জাতীয় ডেস্ক | তারিখঃ ০৭.১০.২০১৫

প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার এশিয়া-আমেরিকাবিষয়ক উপদেষ্টা ড. নীনা আহমেদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাত করেছেন বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান।

স্থানীয় সময় গতকাল  মঙ্গলবার দুপুরে পেনসিলভেনিয়ার ফিলাডেলফিয়ায় এ সাক্ষাত অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় বাংলাদেশের সর্বাধিক প্রচারিত দৈনিক 'বাংলাদেশ প্রতিদিন'র সম্পাদক নঈম নিজাম উপস্থিত ছিলেন।
সাক্ষাৎকালে মার্কিন প্রেসিডেন্টের উপদেষ্টা ড. নীনা আহমেদ বলেন, "বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা যুক্তরাষ্ট্রে তাঁদের পণ্য রপ্তানির পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রে স্টোর নিয়েও ব্যবসা করতে পারেন। নির্দিষ্ট অংকের অর্থ বিনিয়োগ করে একইসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ীভাবে বসবাসের সুযোগও নিতে পারেন তাঁরা। ব্যবসায়ী-বিনিয়োগকারীদের জন্য এখন সব সুযোগ-সুবিধাই দেওয়া হচ্ছে।"  
ওবামার উপদেষ্টা উল্লেখ করেন, "প্রবাসী বাংলাদেশিদের আরো সংঘবদ্ধ হয়ে মূলধারার রাজনীতিতে সম্পৃক্ত হওয়ার সময় এসেছে।"  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের সুবিধাবলী, বাংলাদেশের সার্বিক উন্নয়ন ও কল্যাণে ব্যবসায়ী সমাজের ভূমিকা এবং আমেরিকায় প্রবাসীদের নানা প্রসঙ্গে কথা বলেন তিনি। প্রায় এক ঘণ্টা ধরে বাংলাদেশের সামগ্রিক পরিস্থিতি ‌ও প্রবাসী বাংলাদেশিদের নানা বিষয় নিয়ে হৃদ্যতাপূর্ণ পরিবেশে কথা বলেন তাঁরা। ড. নীনা আরো বলেন, "নানা সমস্যা ও সংকট সত্ত্বেও বাংলাদেশ এগিয়ে চলেছে। বিষয়টি আমাকেও অভিভূত করে। কারণ, যেখানে যে অবস্থায়ই থাকি না কেন, হৃদয়জুড়ে থাকে বাংলাদেশ।" এ সময় বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. নীনাকে জানান, বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরাও সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নের অংশীদার। ব্যবসা-বাণিজ্যে ব্যাপক প্রসার ঘটেছে বাংলাদেশ সরকারের সদিচ্ছার পরিপ্রেক্ষিতে। সরকারের সহযোগিতার দিগন্ত অবারিত থাকলে ব্যবসায়ীরাও উদার চিত্তে এগিয়ে যাবে গঠনমূলক সকল কর্মকাণ্ডে। যুক্তরাষ্ট্রের বাংলাদেশি অধ্যুষিত নিউ ইয়র্ক, পেনসিলভেনিয়া, ক্যালিফোর্নিয়া, ফ্লোরিডা, মিশিগান, নিউজার্সি, জর্জিয়া, টেক্সাস প্রভৃতি স্থানে বাংলাদেশির সংখ্যা ক্রমাগতভাবে বাড়ছে। সব প্রবাসী  ঐক্যবদ্ধ হলে মূলধারায় বাংলাদেশিদের গুরুত্ব অবশ্যই বাড়বে। আর মূলধারায় নিজেদের অবস্থান সংহত হওয়ার অর্থ হচ্ছে ফেডারেল সুযোগ-সুবিধার নিশ্চয়তা পাওয়া।
বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান গত সপ্তাহে মার্কিন কংগ্রেসে কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ইন্টেলিজেন্স কমিটির চেয়ারম্যান এবং ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস কমিটির প্রভাবশালী মেম্বর কংগ্রেসম্যান পিটার কিংয়ের (রিপাবলিকান) সঙ্গেও সাক্ষাৎ করেন।