Print

শিক্ষকদের মাসিক বেতন ‘মুরগির বাচ্চা’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | তারিখঃ ১৪.০৫.২০১৬

উজবেকিস্তানের একটি শহরে অর্থের পরিবর্তে শিক্ষকদের বেতন হিসেবে মুরগির বাচ্চা দেয়া হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্র পরিচালিত রেডিও ওজদলিক এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

উজবেকিস্তানের স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল কারাকালপাকস্তানের নুকুস শহরের শিক্ষকদের এই করুণ পরিস্থিতিতে পড়ার কারণ হিসেবে দেশটির অর্থসংকটকে দায়ী করা হচ্ছে। শহরের এক শিক্ষক সরকারের এ কর্মকাণ্ডকে ‘লজ্জাজনক’ বলে মন্তব্য করেছেন। তিনি বলেন, গত বছর তারা আমাদের বেতন হিসেবে আলু, গাজর ও মিষ্টি কুমড়া দিয়েছিল। এ বছর তারা আমাদের সদ্যোজাত মুরগির বাচ্চা নিতে বাধ্য করছে। যদি আমাদের মুরগির প্রয়োজন হয়ে তাহলে তো আমরা বাজার থেকেই এর চেয়ে সস্তা দরে কিনতে পারি।’

আরেকটি সূত্র জানিয়েছে, শিক্ষকদের বেতন বাবদ যেসব মুরগি ছানা দেয়া হচ্ছে সেগুলোর দাম আড়াই মার্কিন ডলার করে রাখা হচ্ছে, যা স্থানীয় বাজার দরের চেয়ে দ্বিগুণেরও বেশি।
বেশ কয়েকবছর ধরেই অর্থ সংকটে ভুগছে উজবেকিস্তান।

এ কারণে দেশটিতে সরকারি কর্মকর্তাদের বেতন ও পেনশন দিতে দেরি হয়। গত মাসে রাজধানী তাসখন্দে কর্মরত সরকারি কর্মচারীরা অভিযোগ করেছিল, দুই মাস ধরে তারা কোনো বেতন পাচ্ছে না। কারণ ব্যাংকে কোনো অর্থই নেই।

শিক্ষকদের এই বেতনকাণ্ডের সমালোচনা করেছেন স্থানীয় অনেকেই। এক ব্যক্তি একে নির্লজ্জতা ও দুর্নীতিপরায়ণ কর্মকর্তাদের নজির বলে মন্তব্য করেছেন। আরেকজন কৌতুক করে বলেছেন, ‘এর মধ্যে ভুলটা কোথায়? আপনি সকালে মুরগির বাচ্চার স্যুপ খেতে পারছেন, দুপুরে মুরগি ভাজা আর রাতে মুরগির বাচ্চা-শুধু ভিটামিন আর ভিটামিন।’