Nabodhara Real Estate Ltd.

Khan Air Travels

Premier Bank Ltd

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | তারিখঃ ১৬.০১.২০১৮

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টো হত্যাকাণ্ডের ১০ বছরের বেশি সময় পর এর প্রথমবারের মতো এ ঘটনার দায় স্বীকার করেছে দেশটির

জঙ্গি সংগঠন তেহরিক-ই-তালেবান (টিটিপি)। সংগঠনের এক নেতা আবু মনসুর অসিম মুফতি নূর ওয়ালির লেখা নতুন এক বইয়ে এ দায় স্বীকার করা হয়।

নির্বাচনী সমাবেশ থেকে ফেরার সময় ২০০৭ সালের ২৭ ডিসেম্বর আত্মঘাতী হামলায় বেনজির নিহত হন। ‘ইনকিলাব মেহসুদ সাউথ ওয়াজিরিস্তান: ফ্রম ব্রিটিশ রাজ টু আমেরিকান ইমপেরিয়ালিজম’ নামে নতুন এই বইতে মনসুর এই হত্যাকাণ্ডে তার দল জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে। বইটি গত বছরের ৩০ নভেম্বর প্রকাশিত হয় এবং তালেবানের বহু নেতার ছবি সম্বলিত ৫৮৮ পাতার এ বইয়ের সংস্করণ রবিবার অনলাইনে প্রকাশিত হয়েছে।

বইয়ে মনসুর লিখেছেন, বেনজির ভুট্টোকে হত্যার জন্য বিলাল ওরফে সাঈদ এবং ইকরামুল্লাহ নামে দুই জঙ্গিকে পাঠানো হয়েছিল। বিলাল প্রথমে তার পিস্তল দিয়ে বেনজিরকে গুলি করে, গুলি তার ঘাড়ে লাগে। তারপর সে সমাবেশে আসা লোকজনের ভিড়ে আত্মঘাতী হামলা চালায়। আর দক্ষিণ ওয়াজিরিস্তানের ইকরামুল্লাহ সেখান থেকে বেঁচে ফেরে। সে এখনও বেঁচে আছে বলে বইতে উল্লেখ করা হয়েছে। বেনজির হত্যাকাণ্ডের পরপরই এ জন্য টিটিপিকে দায়ী করেন পাকিস্তানের তৎকালীন সামরিক শাসক জেনারেল পারভেজ মুশাররফ প্রশাসন। তবে গত বছরের আগস্টে বেনজির হত্যা মামলা থেকে সন্দেহভাজন পাঁচ পাকিস্তানি তালেবান জঙ্গিকে খালাস দেয়া হয়। বইটিতে দাবি করা হয়েছে, ২০০৭ সালে করাচিতে বেনজির ভু্ট্টোর ওপর আরেকটি হামলা চালিয়েছিল তালেবান। ওই হামলায় ১৪০ জন নিহত হয়। এতে আরো দাবি করা হয়েছে, করাচিতে হামলার পরেও সরকার উপযুক্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা না নেওয়ায় রাওয়ালপিন্ডিতে বেনজির ভুট্টোর ওপর হামলাকে সহজ করে দিয়েছে।