Bangladesh Manobadhikar Foundation

Khan Air Travels

Premier Bank Ltd

/sundarban-tourist.png

বিডিনিউজডেস্ক.কম | তারিখঃ ০৭.১০.২০১৫

বিভিন্ন দেশের পর্যটক দল সুন্দরবন ভ্রমণের জন্য রাখা আগাম বরাদ্দ বাতিল করছে বলে জানিয়েছে কয়েকটি পর্যটন ব্যবস্থাপক সংস্থা (ট্যুর অপারেটর)।

কর্তৃপক্ষের ধারণা, দুজন বিদেশি নাগরিক খুনের ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতেই হয়তো ‘আতঙ্কিত’ বিদেশিরা ভ্রমণে আগ্রহ বোধ করছেন না।    

এদিকে দেশের অন্যান্য স্থানের মতো মংলা বন্দর এলাকায় অবস্থানরত শতাধিক বিদেশি নাগরিকের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। বিদেশিদের তালিকা তৈরির পাশাপাশি মোবাইল ফোন নম্বর সংগ্রহ করা হয়েছে। তাঁদের প্রতিদিনের অবস্থান ও কর্মকাণ্ড সম্পর্কে আগেভাগে জানানোরও পরামর্শ দিয়েছে পুলিশ। 

পাশাপাশি মংলা উপজেলার ১৯টি গির্জায় সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে পুলিশ প্রশাসন।

গত ২৮ সেপ্টেম্বর ঢাকার গুলশানে চেসারে তাভেলা (৫০) নামের ইতালির এক নাগরিককে গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। তিনি গুলশানে নেদারল্যান্ডসভিত্তিক একটি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা ছিলেন। এর মাত্র কদিন পর ৩ অক্টোবর রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার মাহীগঞ্জে জাপানের নাগরিক হোশি কুনিওকে হত্যা করে একদল দুর্বৃত্ত। দুটি হত্যাকাণ্ডের পর ইসলামিক স্টেট (আইএস) পরিচয়ে দায় স্বীকার করে বিবৃতি পাওয়া যায়। 

এ দুটি ঘটনার পর গতকাল সোমবার সকালে পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার ফেইথ বাইবেল চার্চের যাজক লুক সরকারের বাসায় ঢুকে তাঁর গলা কেটে হত্যার চেষ্টা করে দুর্বৃত্তরা। এ সব ঘটনায় বিভিন্ন কূটনৈতিক মিশনের পক্ষ থেকে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়।

এ অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতেই বিদেশিরা সুন্দরবন ভ্রমণের আগাম বরাদ্দ বাতিল করছেন বলে জানান খুলনার পর্যটন ব্যবস্থাপক সংস্থা পার্গমার্ক ট্যুর অ্যান্ড ট্রাভেলসের মালিক নজরুল ইসলাম বাচ্চু। তিনি এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘দুই বিদেশি হত্যার সুদূরপ্রসারী প্রভাব পড়ছে বাংলাদেশের পর্যটন ক্ষেত্রে। আমাদের এখানে ৪০ জন বিদেশি আগাম বরাদ্দ বাতিল করেছেন। রিভারেইন ট্যুরস নামের ঢাকার একটি কোম্পানির একদল ইটালিয়ান পর্যটক আগামী ১২ অক্টোবর বাংলাদেশে আসার শিডিউল বাতিল করেছে।’ 

মংলার বেসরকারি পর্যটন ব্যবস্থাপনা প্রতিষ্ঠান সুন্দরবন লাইফ ট্যুরসের মালিক গোলাম রহমান বিটু জানান, নভেম্বর মাসের শেষে ফ্রান্স ও অস্ট্রেলিয়ার দুটি পৃথক পর্যটক দলের সুন্দরবনে ভ্রমণের শিডিউল ছিল। কিন্তু এরই মধ্যে তাঁরা তাদের শিডিউল বাতিল করেছে।

মংলার ‘দি সাউদার্ন ট্যুরস’-এর মালিক মো. মিজানুর রহমান জানান, বিদেশি হত্যার ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে ডিসেম্বর মাসে সুন্দরবন ভ্রমণে আসার কথা থাকলেও নেদারল্যান্ডসের একটি পর্যটক দল সফর বাতিল করেছে।

এ ব্যাপারে বন বিভাগের খুলনা সার্কেলের বন সংরক্ষক সুনীল কুমার এনটিভি অনলাইনকে বলেন, এখন পর্যন্ত সরকারের পক্ষ থেকে বিদেশি পর্যটকদের বাড়তি নিরাপত্তার বিষয়ে কোনো নির্দেশনা পাওয়া যায়নি। আগের নির্দেশনাতেই বিদেশি পর্যটকরা সুন্দরবন ভ্রমণ করবেন। তবে এখন সুন্দরবনে বিদেশি পর্যটক নেই।

বিদেশিদের নিরাপত্তা জোরদার
মংলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মর্তা (ওসি) শেখ লুৎফর রহমান এনটিভি অনলাইনকে জানান, বিদেশিদের তালিকা তৈরির কাজ চলছে। বিদেশিদের কর্মস্থল ও বসবাস এলাকায় পুলিশের টহল জোরদার করা হয়েছে। হোটেলগুলোর নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। এ ছাড়া সাদা পোশাকে পুলিশ সদস্যরা তাদের নিরাপত্তার বিষয়টি নজরদারিতে রেখেছে। কোনো প্রতিষ্ঠানে কর্মরত বিদেশিরা নিরাপত্তার অভাবে পড়লে সেখানে পুলিশ মোতায়েন করা হবে।

পুলিশ জানিয়েছে, বিদেশিদের মধ্যে ব্রিটিশ, চীন, পাকিস্তানি ও জাপানি নাগরিকই বেশি। এর মধ্যে মংলা ইপিজেডে ৩৮ জন, চায়না হারবার ড্রেজার কোম্পানির ৩০ জন, সিমেন্ট ফ্যাক্টরি এলাকায় ১০ জন, নাজনীন নামক এনজিও প্রতিষ্ঠানে পাঁচজন ও নির্মাণাধীন সাইলোতে দুজন বিদেশি কর্মরত রয়েছেন।

এ ছাড়া পর্যটকসহ নানা কারণে মংলা বন্দরে প্রতিদিনই অন্তত আরো ২০-২৫ জন বিদেশি অবস্থান করে থাকেন। অপরদিকে বন্দরে আগত জাহাজ থেকে বিদেশি নাবিকরা মাঝেমধ্যেই নানা কারণে শহরে যাতায়াত করে থাকেন। এসব বিদেশির যাতায়াত এবং প্রতিদিনের অবস্থান পুলিশকে অবহিত করতে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। তাঁদের সার্বক্ষণিক নিরাপত্তা দিতে থানা ও ফাঁড়িকে পুলিশকে নিদের্শনা দেওয়া হয়েছে বলেও জানায় পুলিশ। 

গির্জায় সতর্কতা জারি 
মংলায় খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের ১৯টি গির্জায় সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। গতকাল সোমবার রাত থেকে পুলিশ এ সতর্কতা জারি করে। বাড়ানো হয়েছে এসব এলাকায় গোয়েন্দা নজরদারি। গির্জার পাশাপাশি এসব প্রতিষ্ঠানের ফাদারসহ প্রার্থনা করতে আসা বিদেশি নাগরিকদের সার্বিক নিরাপত্তা দিতে এই সতর্কতা জারি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মংলা থানার ওসি শেখ লুৎফর রহমান। 

মংলায় ১৯টি গির্জা রয়েছে। এ উপজেলায় বসবাস করছে কয়েক হাজার খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের লোক। খ্রিস্টানদের এসব গির্জার বেশির ভাগের ফাদার বিদেশি নাগরিক। 

শ্যালাবুনিয়ার গির্জা ফাদার নরেন ও ফাদার বাবুল এনটিভি অনলাইনকে নিরাপত্তার বিষয়টি জানিয়েছে। তাঁরা জানান, দুই বিদেশি নাগরিক হত্যার ঘটনায় সম্প্রদায়ের মানুষের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।