Print
বিভাগঃ জাতীয়

 ৪-৫ দিনের মধ্যে আসছে ২ শান্তিরক্ষীর লাশ

জাতীয় ডেস্ক | তারিখঃ ১৬.০৫.২০১৬

পুলিশের ইউএন শাখায় কর্মরত সিনিয়র এএসপি ইনামুল হক সাগর জানিয়েছেন মালিতে বিধ্বংসী ঝড়ে নিহত দুই বাংলাদেশী শান্তিরক্ষীর লাশ দেশে আনতে চার-পাঁচদিন সময় লাগতে পারে।

সোমবার ভোরে বিধ্বংসী ঝড়ে দেশটির রাজধানী বামাকোতে নিহত হন মোতাহার হোসাইন ও সামিদুল ইসলাম নামের দুই কনস্টেবল। আহত হন আরো পাঁচজন। নিহতরা গত তিন মে বাংলাদেশ থেকে মালিতে পৌঁছান। ১২ দিনের মাথায় ঝড়ের কবলে প্রাণ দিতে হলো এই দুই শান্তিরক্ষীর।

সাধারণত জাতিসংঘ মিশনে কর্মরত কারো মৃত্যু হলে, তাদের লাশ দ্রুত দেশে ফেরত পাঠানোর ব্যাপারে জাতিসংঘ তৎপর বলে জানান ইনামুল হক সাগর। তিনি বলেন, “কিছু ফর্মালিটিজ সেরে ফ্লাইট রিজার্ভ করা হবে। সব প্রসেস শেষ হতে হয়তো চার-পাঁচদিন সময় লেগে যেতে পারে। বা আরো কম সময়ের মধ্যেও ফিরে আসতে পারে।”
 
দেশে আসার পর বিমানবন্দর থেকে পুলিশ তা গ্রহণ করবে বলেও জানান তিনি। পুলিশের পক্ষ থেকে জানাজা সম্পন্ন করে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব যথাযথ মর্যাদার  সাথে শান্তিরক্ষীদের লাশ গ্রামের বাড়িতে পাঠানো হবে।
 
নিহত মোতাহার হোসাইনের বাড়ি মুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলায় এবং সামিদুল ইসলামের বাড়ি মংমনসিংহ।
 
সোমবার ভোরে বামাকোতে এ দুই শান্তিরক্ষী নিহত হওয়ার খবর জানা গেছে ফেসবুক থেকে। তাদের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা (অতিরিক্ত পুলিশ সুপার) নাইম নিপু দুইজনের ছবি পাশাপাশি দিয়ে একটি পোস্ট দেন। এতে তিনি লিখেন, “মালিতে একটু আগে হয়ে যাওয়া ঝড়ে এ দুজন মারা গেছে।”
 
যোগাযোগ করা হলে দুইজনের নাম ও পরিচয় জানান তিনি।