Thursday 23rd of February 2017

সদ্য প্রাপ্তঃ

***সড়ক দুর্ঘটনায় তারেক মাসুদ, মিশুক মুনীরসহ পাঁচজন নিহত হওয়ার মামলায় বাসচালক জামির হোসেনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত***

Bangladesh Manobadhikar Foundation

Khan Air Travels

যে শহরে সবাই মাটির নিচে বাস করে! (ভিডিও)

বিডিনিউজডেস্ক ডেস্ক | তারিখঃ ০৪.০১.২০১৭

কল্পবিজ্ঞানের বাস্তব চিত্র কোথায় গিয়ে ঠেকেছে তা একবার এই শহরটির দিকে না তাকালে আঁচ করা অসম্ভব।

এ-ও কি সম্ভব যেখানে সবার বাস মাটির নিচে। মাটির নিচে সাধারণত সাপ, শেয়াল কিংবা এ জাতীয় কিছু প্রাণীর বাস বলেই আমরা জানি। কিন্তু মানুষও পুরো সমাজ নিয়ে মাটির নিচে ঘর বেঁধেছে শুনলেই চমকে উঠে চোখ।সত্যি সত্যি এ দৃশ্য দেখতে চাইলে আপনাকে যেতে হবে কুবের পেডিতে। অস্ট্রেলিয়ার একটি শহর কুবের পেডি। এই শহরটির পুরোটাই মাটির নিচে। তবে আপনি দেখলেও সহজে বুঝবেন না। কেননা, আর দশটি শহরের মতোই দেখতে অতি আধুনিক এই শহর।

অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডিলেড থেকে প্রায় ৮৪৬ কিলোমিটার উত্তরে অবস্থিত শহরটিতে মোট সাড়ে ৩ হাজার লোকের বাস।এ যেন কল্পবিজ্ঞানেরই বাস্তব রূপ! যে গ্রামের সবাই মাটির নিচে বাস করেন! খানিকটা জুলেভার্নের 'জার্নি টু দ্য সেন্টার অফ দ্য আর্থ'-এর মতো। পৃথিবীর গভীরে আরেক বিশ্বের খোঁজ।

১৯১৫ সালে জন্ম নেয়া শহরটির মূল বৈশিষ্ট্য বহুমূল্য রত্নের খনি। opal নামক রত্নটি বিশ্বের ৯৫ শতাংশই পাওয়া যায় কুবের পেডি এলাকা থেকে। বাইরে থেকে শহরটির দিকে তাকালে চোখ কপালে উঠবে যেকারোরই।

আপনি যখন মাটির নিচের এই শহরটির ধারে দাঁড়াবেন চোখে পড়বে চারদিকের জনমানব শূন্য নীরবতা। ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে অসংখ্য গুহা। প্রায় প্রতিটি গুহা থেকে সুড়ঙ্গের মতো একটি করে সিঁড়ি নিচ দিকে নেমে গেছে। তারপর সেই সিঁড়িগুলো চলে গেছে মাটির অনেক গভীরে।সিঁড়ি ধরে আপনি যতই নিচ দিকে নামতে থাকবেন ততই চমকিত হবে আপনার চোখ। যেন পৃথিবীর ভেতরে রচিত নতুন আরেক পৃথিবী। এ যেন এক রূপকথার নগরী।

অথচ আপনার-আমার শহরের মতোই সেখানে রয়েছে সব ধরনের অত্যাধুনিক সুযোগ-সুবিধা। আধুনিক বাসস্থানের পাশাপাশি উচ্চপ্রযুক্তির সরঞ্জাম, দামি হোটেল ও নান্দনিক সুইমিং পুলেরও দেখা মিলে শহরটিতে।এখন আসা যাক মূল সংলাপে। প্রায় শতবর্ষ আগের কথা। সে বছর অস্ট্রেলিয়ার বিস্তীর্ণ এলাকাজুড়ে শুরু হয় তীব্র তাপদাহ। কুবের পেডির সেসময়ের তাপমাত্রা ছিল ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসেরও বেশি।

এমতাবস্থায় তাপদাহ থেকে নিজেদের বাঁচাতেই সেখানকার বাসিন্দারা মাটির নিচে বসবাসের ব্যবস্থা করে। তারপর থেকে বছরের পর বছর ধরে চলছে মাটির নিচে বসবাস, সংসার। কুবের পেডি আজ আজগুবি দুনিয়ার সেরা বিস্ময়গুলোর অন্যতম।