আজ সোমবার, ২১ আগস্ট, ২০১৭

সদ্য প্রাপ্তঃ

*** সৌদি দূতাবাস কর্মকর্তা খালাফ হত্যা মামলায় আপিল বিভাগের রায় ১০ অক্টোবর * বন্যায় টাঙ্গাইলে সেতুর সংযোগ সড়কে ধস; উত্তর ও দক্ষিণাঞ্চলের সঙ্গে ঢাকার রেলযোগাযোগ বন্ধ * রাজারবাগে এক নারী কনস্টেবলকে ধর্ষণের অভিযোগে তার এক সহকর্মী গ্রেপ্তার * কোটালীপাড়ায় হাসিনাকে হত্যাচেষ্টার মামলায় ফায়ারিং স্কোয়াডে ১০ আসামির মৃত্যুদণ্ডের রায় * সৌদি দূতাবাস কর্মকর্তা খালাফ হত্যা মামলায় আপিল বিভাগের রায় ১০ অক্টোবর * বন্যায় টাঙ্গাইলে সেতুর সংযোগ সড়কে ধস; উত্তর ও দক্ষিণাঞ্চলের সঙ্গে ঢাকার রেলযোগাযোগ বন্ধ * রাজারবাগে এক নারী কনস্টেবলকে ধর্ষণের অভিযোগে তার এক সহকর্মী গ্রেপ্তার * কোটালীপাড়ায় হাসিনাকে হত্যাচেষ্টার মামলায় ফায়ারিং স্কোয়াডে ১০ আসামির মৃত্যুদণ্ডের রায়

Bangladesh Manobadhikar Foundation

Khan Air Travels

মরণোত্তর বিয়ে!

বিডিনিউজডেস্ক ডেস্ক | তারিখঃ ১৬.০৫.২০১৬

ভূতের বিয়ে বাস্তবেও হয় নাকি?

আসলে এই বিপুল বিশ্বের কতটুকুই বা আমরা জানি। ভূতদেরও বিয়ে হয়। আর তার সাক্ষী থাকতে হলে আপনাকে পাড়ি দিতে হবে চীনে। দেশটির শেনক্সি প্রদেশে সম্প্রতি সদ্য মৃত এক তরুণীর সঙ্গে মহা ধুমধাম করে বিয়ে হল এক মৃত যুবকের। বিয়ের অনুষ্ঠানে খরচ হয়েছে এক লাখ ৮০ হাজার ইয়েন। মৃত ব্যক্তিদের মধ্যে বিয়ে চীনের বহু গ্রামের প্রাচীন প্রথা।শেনক্সি প্রদেশের প্রত্যন্ত গ্রামের দুই কৃষক পরিবারের মৃত সন্তানদের মধ্যে বিয়ের অনুষ্ঠানটি হয়েছে। চীনের সরকারি সংবাদমাধ্যম চায়না রেডিও ইন্টারন্যাশনাল’র খবর অনুযায়ী, গ্রামীণ চীনে অনেকে বিশ্বাস করেন, পরিবারের কমবয়সী কারো অবিবাহিত অবস্থায় মৃত্যু হলে পরিবার অভিশপ্ত হয়ে যায়। তখন মৃতের সঙ্গে কোনো মৃতের বিয়ে দিলে অভিশাপমুক্ত হওয়া যায়।সম্প্রতি একটি কৃষক পরিবারের এক কন্যার দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়। আরেকটি পরিবারেরও এক যুবকের মৃত্যু হয়েছিল তিন বছর আগে। দুই পরিবারের দুই মৃত সদস্যের সঙ্গে বিয়ে ঠিক হয় সম্প্রতি। সেইমতো দুটি দেহের কফিন ফের কবর থেকে তুলে বিয়ে দিয়ে ফের তা কবর দিয়ে দেয়া হয়। চীনের গ্রামাঞ্চলে মরণোত্তর বিয়ে দেয়ার একটি বিশাল বাজার রয়েছে। কয়েক লাখ টাকার ব্যবসা চলে সেই বাজারে।চীনের জিনজিয়াং নর্মাল ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক চেন ওয়েনহুয়ার কথায়, ‘দ্রুত এই কুসংস্কার বন্ধ করা সম্ভব নয়। সরকারকে এ ব্যাপারে স্থির পদক্ষেপ নিতে হবে। মৃত ব্যক্তিদের মধ্যে বিয়ে আসলে কুসংস্কার, সে ব্যাপারে মানুষকে সচেতন করতে হবে। কারণ এই প্রথাটি বহু প্রাচীন।’