আজ মঙ্গলবার, ৩০ মে, ২০১৭

সদ্য প্রাপ্তঃ

*** সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে সরিয়ে নেওয়া হল আলোচিত ভাস্কর্যটি * মধ্যরাতে ভাস্কর্য অপসারণের কাজ চলার মধ্যে সুপ্রিম কোর্টের সামনে বিক্ষোভ * ‘চাপে পড়ে’ ভাস্কর্যটি সরানোর কথা বললেন ভাস্কর মৃণাল হক; তবে কার চাপ, তা বলেননি তিনি * খুলনা জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদককে গুলি চালিয়ে হত্যা, গুলিতে তার সহকারীও নিহত * সরকার বিরোধী নেতা-কর্মীদের হত্যার মিশনে, বললেন খালেদা জিয়া * মাগুরায় জেলা প্রশাসককে ঘুষ দিতে গিয়ে ৫ লাখ টাকাসহ এক ব্যক্তি গ্রেপ্তার

Bangladesh Manobadhikar Foundation

Khan Air Travels

ভর্তা তৈরির যে কৌশলগুলো সবার কাছে অজানা

বিডিনিউজডেস্ক ডেস্ক | তারিখঃ ১২.০১.২০১৭

মাঝে মাঝে দাদী-নানী বা মা-খালাদের রান্নাঘর থেকে তুলে নিয়ে আসবো তাঁদের অসাধারণ রান্নার গোপন রহস্য।

ঘরোয়া রান্নার পাশাপাশি থাকবে ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে রান্না বিষয়কও হরেক রকমের টিপস ও ট্রিকস।প্রফেশনাল কিচেনে আমাদের সবচাইতে বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে বেশ কয়েকঘণ্টা পরও খাবারকে সুস্বাদু রাখতে পারা। যেমন ধরুন, গরম গরম সুস্বাদু চাইনিজ ভেজিটেবল তৈরি করে পরিবেশন করতে প্রায় সকলেই পারেন। কিন্তু সেই ভেজিটেবলটি এমনভাবে তৈরি করা যে কয়েকটা পরও খেতে ভালো লাগবে, খাবারটা গরম রাখতে গিয়ে বাড়তি তাপমাত্রায় ওভারকুকড হয়ে যাবে না, কিংবা গ্রাহকের হাতে পৌঁছাবার পর তিনি পুনরায় গরম করে খেতে চাইলেও স্বাদ অক্ষুন্ন থাকবে- এসব দিক বিবেচনা করতে গেলে কিন্তু কাজটি বেশ কঠিন। একই ব্যাপার ভর্তার ক্ষেত্রেও! কারণ ভর্তা জিনিসটা মোটেও বেশি সময় রাখা যায় না। তৈরি করার পর যত দ্রুত খেয়ে ফেলা যায়, ভর্তা লাগে ততই সুস্বাদু।

কিন্তু সবসময় কি সেটা সম্ভব? ধরুন, বাড়িতে মেহমান এলেই কি আর সাথে সাথে ভর্তা তৈরি করে পরিবেশন করা যায়? কিংবা ভর্তা খাওয়ার পর কিছুটা রয়ে গেলে যখন আমরা ফ্রিজে রেখে দিই, তখন কিন্তু সেই ভর্তার স্বাদ একদমই নষ্ট হয়ে যায়। বিশেষ করে চিংড়ি বা এই জাতীয় মাছের ভর্তা এবং কাঁচা পিঁয়াজ দিয়ে তৈরি করা হয় এমন ভর্তা। বিশেষ করে আলু ভর্তা, ডাল ভর্তা ইত্যাদি মোটেও ফ্রিজে রেখে খাওয়া যায় না।

তাহলে উপায়?

উপায় একটা আছে বটে। আজ আমি এমন কয়েকটি টিপস বলবো, যাতে আলু ভর্তার মত খাবারও ফ্রিজে রাখলে স্বাদ থাকবে অটুট। এছাড়াও অন্য যে কোন ভর্তাই বেশ কয়েকদিন পর্যন্ত থাকবে সুস্বাদু ও ফ্রেশ!

যা করবেন-

চিংড়ি বা যে কোন মাছ দিয়ে ভর্তা তৈরি করলে অবশ্যই রসুন ব্যবহার করুন। রসুন ও মাছ অন্যান্য উপকরনের সাথে সরিষার তেলের মাঝে ভালো করে ভেজে তারপর ভর্তা তৈরি করুন। এভাবে তৈরি করা ভর্তা সারাদিনেও ফ্রিজ ছাড়া নষ্ট হবে না। ফ্রিজে রাখলে ৫/৬ দিন পর্যন্ত সুস্বাদু থাকবে।

আলু, ডাল ইত্যাদি যেসব ভর্তায় কাঁচা পেঁয়াজ ব্যবহার করা হয় সেগুলোতে ভাজা পেঁয়াজ বা বেরেশ্তা ব্যবহার করুন। সাথে অবশ্যই যোগ করুন সরিষার তেল বা ঘি। কাঁচা পেঁয়াজের কারণেই ভর্তা দ্রুত নষ্ট হয়ে যায় এবং ফ্রিজে রাখলেই দুর্গন্ধযুক্ত ও বিস্বাদ হয়ে যায়। কাঁচা পেঁয়াজের ভর্তা সাথে সাথে খেয়ে নেয়াই উত্তম।

ভর্তা বেশ কয়েকদিন ফ্রিজে রেখে খেতে চাইলে কাঁচা মরিচের পরিবর্তে ভাজা শুকনা মরিচ ব্যবহার করুন। এছাড়াও ধনিয়া পাতার ব্যবহার পরিহার করুন। কাঁচা যে কোন কিছুই ভর্তা দ্রুত নষ্ট করে দেবে।

ফ্রিজে রেখে খেতে চাইলে ভর্তাই একটুখানি বেশি সরিষার তেল ব্যবহার করবেন। এতে ভর্তা দ্রুত ড্রাই হয়ে স্বাদ হারাবে না। এছাড়াও এয়ার টাইট বক্স বা ফয়েল পেপারের বক্সে সংরক্ষন করুন।