Print

উন্নয়ন ফোরামের বৈঠকে চারটি বিষয় প্রাধান্য পাচ্ছে
বিডিনিউজডেস্ক.কম | তারিখঃ ০৪.১০.২০১৫

নভেম্বরের ১৫ ও ১৬ তারিখ ঢাকায় অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ উন্নয়ন ফোরামের (বিডিএফ) বৈঠক । দুই দিনব্যাপী এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে।

সর্বশেষ ২০১০ সালের ১৫ ও ১৬ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় বিডিএফ’র বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছিল। অনুষ্ঠেয় বৈঠককে সামনে রেখে ‘অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ’ (ইআরডি)-এর সচিবকে প্রধান করে সম্প্রতি ২৫ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করেছে সরকার। এবারের বৈঠকে চারটি বিষয়কে বিশেষ প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে।
এগুলো হচ্ছে ভিশন-২০২১, সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) ও দারিদ্র্য বিমোচন। এ ছাড়া বৈদেশিক অর্থছাড় বাড়ানো, গুরুত্বপূর্ণ খাতগুলোতে দাতাদের সহযোগিতা ইত্যাদি বিষয় নিয়েও আলোচনা হবে। অর্থ মন্ত্রণালয় ও ইআরডি সূত্রে এ সব তথ্য জানা গেছে। ইআরডি সূত্রে জানা যায়, নভেম্বরের বৈঠকে ২০১৬-২০ সাল মেয়াদে সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনায় দাতাদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে চায় সরকার। এ ছাড়া বৈঠকে সরকারের দীর্ঘমেয়াদি বিভিন্ন পরিকল্পনাগুলোও তুলে ধরা হবে। এ সব পরিকল্পনার বিষয়ে দাতাদের কোনো পরামর্শ বা মতামত থাকলে সেগুলো গ্রহণ করা হবে। বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে বেশ কিছু বিষয় উপস্থাপন করা হবে। আশা করছি, ফলপ্রসূ আলোচনা হবে।’ সূত্র জানায়, বিডিএফ বৈঠকের প্রস্তুতি হিসেবে ইতোমধ্যে বেশকিছু কাজ সম্পন্ন করেছে ইআরডি। এর মধ্যে ২০১৩ সালের ২৮ মার্চ ও একই বছরের ১৪ জুন পরপর দুটি এলসিজি বৈঠক, যৌথ সহযোগিতা কৌশলপত্র (জেসিএস) বাস্তবায়নে এ্যাকশন প্ল্যান তৈরি এবং এইড পলিসি বিষয়ে একটি ওয়ার্কিং ব্রিফ তৈরি ও এ সংক্রান্ত বৈঠকের কাজ শেষ করেছে ইআরডি।
২০১০ সালের বিডিএফ বৈঠকে প্রতি বছর একবার এ বৈঠক করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। পরবর্তী সময়ে পদ্মা সেতুতে অর্থায়ন নিয়ে বিশ্বব্যাংকের সঙ্গে সরকারের টানপোড়েন শুরু হলে উন্নয়ন সহযোগীদের সঙ্গে দূরত্বের সৃষ্টি হয়। এ কারণে ইআরডি’র পক্ষ থেকে বিডিএফ বৈঠকের জন্য বার বার তাগিদ দেওয়া হলেও দাতারা এ বৈঠকের ব্যাপারে কোনো আগ্রহ দেখায়নি। এরপর গত ফেব্রুয়ারিতে বিডিএফ বৈঠকের উদ্যোগ নেওয়া হলেও দেশের রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে তা বাতিল হয়ে যায়। এরপর এপ্রিলে বৈঠক করার উদ্যোগ নেওয়া হলে সেটিও বাতিল হয়ে যায়।