মুদ্রণ

বিডিনিউজডেস্ক.কম

তারিখঃ ১৯.০৪.২০১৫

কিডনি রোগের প্রাথমিক লক্ষণ হিসেবে সাধারণত মুখ ফোলা, শরীর ফোলা, প্রস্রাব লাল হওয়া, প্রস্রাবের পরিমাণ কম হলে সাধারণত ধরে নেয়া হয়।

তারপর বিভিন্ন পরীক্ষার মাধ্যমে কিডনির অবস্থা ও কিডনি সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়। এ পর্যন্ত কিডনি আক্রান্ত রোগীদের যেসব লক্ষণ পরিলক্ষিত হয়েছে তার ধারনা দেওয়া হল।

লক্ষন সমূহ :

১. ঘন ও লালচে প্রস্রাব, ঘন ঘন প্রসাবের বেগ অথবা প্রস্রাবের পরিমাণ কমে যায়।

২. প্রস্রাবের সময় ব্যথা বা জ্বালা-পোড়া করা।

৩. ঘন ঘন ব্যথা ও ক্লান্তিভাব শরীর অথবা মুখে চুলকানি ও লালচে ভাব, হাত-পা অথবা মুখ ফুলে যায়।

৪. গায়ের রঙ কালো হয়ে যাওয়া। বমি বমি ভাব, ক্ষুধামন্দা, কোমর বা পিঠে ব্যথা অনুভূত হওয়া। যদি আপনার এসব যে কোনো একটি লক্ষণ থেকে থাকে তাহলে ডাক্তারের শরণাপন্ন হওয়া উচিত।

৫. কিডনির সুস্থতায় বছরে একবার অন্তত প্রস্রাব পরীক্ষা করা উচিত।

৬. প্রতি বছর একবার অন্তত (ক্রিয়েটিনিন) রক্ত পরীক্ষা করা উচিত।

৭. রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা পরীক্ষা করা উচিত।

৮. প্রতিদিন প্রচুর পানি খাবেন।

৯. প্রস্রাবের চাপ থাকলে, প্রস্রাব আটকে রাখবেন না।

১০ নিয়মিত ব্যায়াম ও রুটিন মাফিক চলাফেরা করুন।

১১. বেশি টাইট কাপড় পরবেন না।