Thursday 23rd of February 2017

সদ্য প্রাপ্তঃ

***সড়ক দুর্ঘটনায় তারেক মাসুদ, মিশুক মুনীরসহ পাঁচজন নিহত হওয়ার মামলায় বাসচালক জামির হোসেনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত***

Bangladesh Manobadhikar Foundation

Khan Air Travels

স্মার্টফোন চোখের মারাত্মক ক্ষতি করে, সাবধান!

লাইফস্টাইলডেস্ক ডেস্ক | তারিখঃ ০৮.০১.২০১৭

স্মার্টফোন ব্যবহারে চোখের ক্ষতি হয়, এ বিষয়টি বেশ কিছুদিন ধরেই আলোচনায় রয়েছে।

কিন্তু কিভাবে এ ক্ষতি হয়, সে সম্পর্কে অনেকেরই স্পষ্ট ধারণা ছিল না। সম্প্রতি গবেষকরা জানিয়েছেন চোখের একটি বিশেষ পরিস্থিতির জন্য দায়ী স্মার্টফোনের স্ক্রিন। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে ইনডিপেনডেন্ট। বহু মানুষই বলেন, স্মার্টফোনের দিকে দীর্ঘসময় তাকিয়ে থাকেন তারা। আর এতে চোখের ওপর বাড়তি চাপ পড়ে বিষয়টি টের পাওয়া যায়।

সাম্প্রতিক গবেষণায় জানা গেছে, চোখের ওপর স্মার্টফোনের প্রভাব আগে যে ধারণা করা হয়েছিল, তার চেয়েও বেশি। এ ক্ষেত্রে মূল যে সমস্যাটি হয় তা হলো ড্রাই-আই ডিজিজ বা চোখ শুকিয়ে যাওয়া সমস্যা। এ রোগে মানুষের চোখ শুকিয়ে যায়।

গবেষকরা জানিয়েছেন, যারা প্রায় সারাক্ষণ স্মার্টফোন ব্যবহার করেন তাদের মাঝে এ সমস্যা বেশি হয়। তবে কয়েক মাস স্মার্টফোন ব্যবহার না করলে এ সমস্যা আবার হ্রাস পায়।

মূলত চোখের অভ্যন্তরে পানি উৎপাদিত হয় নিয়মিত একটি নির্দিষ্ট মাত্রায়। কিন্তু অতিরিক্ত স্মার্টফোন ও অন্যান্য স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে থাকলে এ উৎপাদন কমে যায়। ফলে চোখ শুকিয়ে যায়। এর লক্ষণ প্রকাশিত হয় চোখ লাল ও ফুলে যাওয়ার মাঝে। এ ছাড়া চোখে জ্বালাপোড়াও করতে পারে। বয়স্ক ও তরুণ, উভয়ের মাঝেই হতে পারে এ সমস্যা। তবে শিশুরাও এর বাইরে নয়। আর শিশুদের এ সমস্যা প্রায়ই উপেক্ষিত থাকে।

এ রোগের কারণ হিসেবে গবেষকরা বলছেন, স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে থাকলে স্বাভাবিকভাবেই আমাদের চোখের পলক কম পড়ে। আর এতেই শুরু হয় যাবতীয় সমস্যা। চোখের পলক পড়ার সঙ্গে সঙ্গে চোখ আর্দ্রও থাকে। এতে সুস্থ থাকে চোখ। অন্যদিকে পলক না পড়লে চোখ তাড়াতাড়ি শুকিয়ে যায়। ফলে সমস্যাগুলো তৈরি হয়।

চোখের এ সমস্যাটি শিশুদের ক্ষেত্রে কোনোভাবেই অবহেলা করা উচিত নয় বলে জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। কারণ তারা বর্তমানে বেশি বেশি করে স্ক্রিনের সামনে সময় দিচ্ছে। আর এতে তাদের চোখের ঝুঁকি বাড়ছে। এ ক্ষেত্রে প্রতিদিন স্ক্রিনের সামনে ব্যয় করা সময় নিয়ন্ত্রণ করা অত্যন্ত জরুরি। কোনো স্ক্রিনেই দুই ঘণ্টার বেশি সময় দেওয়া উচিত নয় বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। এ ছাড়া একটানা বেশিক্ষণ স্মার্টফোন ও অন্যান্য স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে থাকাও উচিত নয়।

এ বিষয়ে গবেষণাটির ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে বিএমসি অপথ্যালমোলজি জার্নালে।