Print

আগামী তিন বছরে রেলের উন্নয়ন চোখে পড়েবে

জাতীয় ডেস্ক | তারিখঃ ১৪.১০.২০১৫

বর্তমান সরকারের মেয়াদ শেষে রেলওয়ের দৃশ্যমান অগ্রগতি লক্ষ্য করা যাবে।

রেলপথ উন্নয়নে সরকার অনেক প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। এগুলো শেষ হতে প্রায় তিন বছর সময় লাগবে। সরকারের মেয়াদ আছে তিন বছর। তাই মেয়াদ শেষে রেলওয়ের দৃশ্যমান অগ্রগতি চোখে পড়েবে। আজ বুধবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে মিট দ্য প্রেস অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন রেলপথ মন্ত্রী। ক্রাইম রিপোর্টার্স এ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্র্যাব) এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। রেলপথমন্ত্রী বলেন, রেলওয়ের গৃহিত প্রকল্পগুলো হলো- ঢাকা-চট্টগ্রাম ডাবল রেল লাইন নির্মাণ প্রকল্প, ঢাকা-চট্টগ্রাম ভায়া কুমিল্লা স্প্রিট এক্সপ্রেস ওয়ে প্রকল্প, ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ ডাবল পাইন প্রকল্প, ঢাকা-জয়দেবপুর ফোর লেন প্রকল্প। এসব কাজ শেষ হলে রেলওয়ের যাত্রী সেবা বাড়বে বলে আশা করেন রেলপথ মন্ত্রী মুজিবুল হক। এ ছাড়া ঢাকার যানজট নিরসনে সার্কুলার ট্রেন চালুর বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী সম্মতি দিয়েছে বলে জানান রেলমন্ত্রী। তিনি বলেন, বর্তমানে এ সার্কুালার রেলপথ প্রকল্প নিয়ে সমীক্ষা করা হচ্ছে। এর পর প্রকল্প প্রস্তাবনা তৈরি হবে, একনেকে পাস হবে, তারপর অর্থপ্রাপ্তি সাপেক্ষে তা বাস্তবায়ন হবে। রেলমন্ত্রী বলেন, যাত্রী সেবার মান বাড়াতে পর্যায়ক্রমে সারাদেশের রেল লাইন ডাবল করা হবে। এ ছাড়া আগামী এক বছরের মধ্যে পর্যাপ্ত কোচ, ইঞ্জিন ও লোকবলের যে সমস্যা আছে তা দূর হবে। রেলওয়ের অবৈধ জমি উদ্ধারে কি পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে? মিট দ্য প্রেসে মন্ত্রীর কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, রেলওয়ের জমি অনেক অবৈধ দখলে আছে এটি সত্য। অনেকে লিজ নিয়ে টাকাও পরিশোধ করেনি। আমরা এসব জমি উদ্ধার রেলওয়ের রুটিন ওয়ার্ক। এটি আমরা করে যাচ্ছি। কিন্তু মামলার কারণে অনেক ক্ষেত্রে তা আটকে যাচ্ছে।