Print


বিডিনিউজডেস্ক.কম | তারিখঃ ১৬.০৯.২০১৫

নিয়মিত মাছ খাওয়ার ফলে পুরুষদের ২০ শতাংশ এবং নারীদের ১৬ শতাংশ পর্যন্ত হতাশা কমে। মাছ একটি স্বাস্থ্যকর এবং পুষ্টিকর খাবার।

মাছের উচ্চমাত্রার প্রোটিন, ভিটামিন এবং মিনারেল রোগ প্রতিহত করে। গবেষকদের মতে, মাছে বিদ্যমান ওমেগা-৩ এসিড মস্তিষ্কের কোষকে প্রভাবিত করে। এটি হতাশার সঙ্গে জড়িত নিউরোট্রান্সমিটার, ডোপামাইন এবং সেরোটনিনে কোষে পরিবর্তন আনে।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা হিসাব অনুযায়ী, বিশ্বে প্রায় ৩৫ কোটি মানুষ হতাশায় ভুগছে এবং ২০২০ সাল নাগাদ হতাশা শারিরীক অসুস্থতার দ্বিতীয় কারণে পরিণত হবে। আগের গবেষণাগুলোতে বলা হয়েছে- নিয়মিত ফলমূল, সবজি, মাছ এবং শস্যদানা খাওয়ার মাধ্যমে হতাশা নিয়ন্ত্রণ করা যায়।বিশেষ কোন খাদ্যের ওপর জোর দেয়া হয়নি। যদিও হতাশা কমানোর প্রসঙ্গে মাছের ভূমিকা এখনো বিতর্কিত। কয়েকটি গবেষণায় দেখা গেছে, মাছে বিদ্যমান ওমেগা-৩ মস্তিষ্কের কার্যক্রম এবং স্নায়ুকোষে প্রভাব বিস্তার করে। গবেষণা অবশ্য মাছ খাওয়ার সঙ্গে হতাশা হ্রাসের কোনো সম্পর্ক খুঁজে পায়নি। ২০০১ সাল থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত বিশ্বের সব হতাশা বিষয়ক গবেষনার দিকে খেয়াল রেখে নতুন এই গবেষণা চালানো হয়েছে। পূর্বে মাত্র একটি ইউরোপিয়ান গবেষণায় মাছ খাওয়ার সঙ্গে হতাশা হ্রাসের বিষয়টি উঠে এসেছিল। চীনা এক গবেষক বলেন, মাছ খেলে সম্ভবত হতাশা কমে, তবে এর জন্য আরও গবেষণা প্রয়োজন। এপিডেমোলোজি এন্ড কমিউনিটি হেলথের একটি সাময়িকীতে গবেষণাটি প্রকাশিত হয়েছে।