Print
বিভাগঃ রাজনীতি

কাচের ঘরে থেকে ঢিল ছুড়বেন না, খালেদাকে: বিপু

বিডিনিউজডেস্ক ডেস্ক | তারিখঃ ০৪.০৫.২০১৬

সজীব ওয়াজেদ জয়ের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়ার অর্থপাচারের অভিযোগের প্রতিবাদ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীর দুই ছেলে-মেয়ের সঙ্গে বিএনপি নেত্রীর ছেলেদের কর্মকারে তুলনামূলক চিত্র তুলে ধরেছেন জ্বালানি ও বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু।

নিজের ফেইসবুকে লেখা এক প্রতিক্রিয়ায় তিনি বিএনপি চেয়ারপারসনকে ‘কাচের ঘরে বাস করে ঢিল ছোড়া উচিৎ নয়’ প্রবাদটি মনেও করিয়ে দিয়েছেন।এফবি আই সদস্যকে ঘুষ দেওয়ায় এক যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বিএনপি নেতার ছেলের কারাদ-ের মামলার নথিতে জয়ের অ্যাকাউন্টে ৩০০ মিলিয়ন ডলার থাকার তথ্য রয়েছে বলে দাবি করেন খালেদা জিয়া। জয়কে আটক করে এ বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতি দাবিও জানান তিনি।

তার বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে বুধবার এক ফেইসবুক পোস্টে বিপু লিখেছেন, আমি অনেক দিন ধরে সজীব ওয়াজেদ জয়কে চিনি এবং তাকে ব্যক্তিগত ও পেশাগতভাবে দেখার সুযোগ আমার হয়েছে।তার দেখা রাষ্ট্রনেতাদের সন্তানদের মধ্যে জয়ের মতো খুব কমই আছে মন্তব্য করে বিপু লিখেছেন, তিনি জীবনযাপন খুবই সাধারণ, চলাফেরাও। তার অ্যাকাউন্টে ৩০০ মিলিয়ন ডলার লুকানো আছে বলে যে কথা বলা হয়েছে, তা শুধু হাস্যকরই নয়, ঘৃণ্যও।এই পোস্ট দেওয়ার ব্যাখ্যায় প্রতিমন্ত্রী লিখেছেন, সাধারণত তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কাউকে নিয়ে বিরূপ কিছু বলতে না চাইলেও তার প্রিয় একজন ব্যক্তিকে নিয়ে খালেদা জিয়ার মন্তব্য শুনে নিজেকে ধরে রাখতে পারেননি।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য বিপু বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে-মেয়ে, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাতি-নাতনিরা স্বচ্ছন্দ্যময় জীবন কাটানোর সুযোগ কমই পেয়েছেন।‘জনগণের কল্যাণে গুরুত্ব দিয়ে হাসিনা আপা তাদের (সন্তানদের) বেড়ে ওঠায় খুব কম সময় দিতে পেরেছেন। রেহানা আপার হাতে বেড়ে ওঠা এই শিশুরা এই অবস্থায় অনেক কষ্ট সয়েই এসেছে।'ডিজিটাল বাংলাদেশ’র রূপরেখা প্রণয়নের মূল পরিকল্পনায় জয়ের অবদান তুলে ধরে এই প্রতিমন্ত্রী বলেন, এ থেকেই তরুণ জনগোষ্ঠীকে কাজে লাগিয়ে এখন সুবিধা পাওয়া যাচ্ছে।‘এটা আমাদের মধ্য আয়ের দিকে দ্রুত এগিয়ে যাওয়ার সক্ষমতা তৈরি করেছে। বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধিতে তার ভূমিকা প্রশ্নাতীত।’পক্ষান্তরে প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ছেলেরা ‘দুর্নীতি ও ব্যর্থতার লজ্জায় ডুবিয়েছে’ বলে মন্তব্য করেছেন বিপু।‘এতিমদের টাকা চুরির মতো নিম্নমানের অপরাধ করে তারেক জিয়া লন্ডনে পালিয়ে আছেন এবং কোকো, আল্লাহ তার আত্মার শান্তি দিক, মাথায় মুদ্রাপাচারের মামলা নিয়ে মারা গেছেন।''আপনি কি মনে করেন, বাংলাদেশের মানুষ তাদের কাছ থেকে আরও কিছু আশা করেছিল?’তারেক ও কোকো দুজনই রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুল ও কলেজে তার জুনিয়র ছিলেন জানিয়ে বিপু বলেন, ‘তারা দুজনই সেখানে কোনো কিছু অর্জনে ব্যর্থ ছিল। সারাজীবন তাদের সোনার পাত্রে সব কিছু দেওয়া হয়েছে।

জনগণের সঙ্গে কীভাবে যোগাযোগ করতে হয় তা তারা জানে না।'বেগম জিয়া, দয়া করে মরে রাখবেন, যে কাচের ঘরে থাকে, তার ঢিল ছোড়া উচিৎ নয়,’ এই বলে লেখা শেষ করেছেন বিপু।