Saturday 25th of March 2017

সদ্য প্রাপ্তঃ

***আইপিএলকে বাতিল করে দিল বিসিসিআই!***

Bangladesh Manobadhikar Foundation

Khan Air Travels

সামরিক জাদুঘরে বসছে সোশ্যাল মিডিয়া এক্সপো

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক | তারিখঃ ০৯.০১.২০১৭

দেশের তরুণ-তরুণীদের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারে সচেতনতা বাড়াতে বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ‘সোশ্যাল

মিডিয়া এক্সপো- ২০১৭’। ‘অ্যাওয়ার বাংলাদেশ’ স্লোগানে আগামী ৩-৪ ফেব্রুয়ারি ঢাকার সামরিক জাদুঘর প্রাঙ্গণে বসছে এই আয়োজন। দুই দিনব্যাপী এক্সপোটি যৌথভাবে আয়োজন করছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ এবং ভার্ব ইভেন্টস।

আয়োজন নিয়ে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ বলেন, ‘তথ্যপ্রযুক্তির অপব্যবহার যাতে না হয়, সে জন্য সচেতনতা বাড়াতেই এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এ মেলার মাধ্যমে যারা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার করছেন, তাদের যেমন সচেতন করা হবে, তেমনি অব্যবহারকারীদেরও সচেতন করা হবে’।

তিনি আরও বলেন, ‘কয়েক বছর ধরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব ছড়িয়ে সমাজ, দেশের সম্পদের ক্ষতি করা হয়েছে। কিন্তু এসবের বিপরীতে আবার অনেকেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার করে সচেতনতা গড়ে তুলতে ও শিক্ষাবিস্তারে নানা ধরনের ভালো কাজ করছেন। এ ধরনের ভালো কাজগুলোকে সারা দেশে ছড়িয়ে দেওয়া হবে এ আয়োজনের মাধ্যমে।

আয়োজকরা জানান, এই আয়োজনে সচেতনতা তৈরির পাশাপাশি থাকছে ইন্টারনেটের বহুবিধ ব্যবহার সম্পর্কে বিভিন্ন কার্যক্রম। সাইবার আইন ও অপরাধ, ই-লার্নিং, ই-হেলথ, ই-সিকিউরিটিসহ আরও বিভিন্ন বিষয়ে জানানো ও সচেতনতামূলক কার্যক্রম রয়েছে।

দুই দিনের সোশ্যাল মিডিয়া এক্সপোতে ছয়টি সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে। সারা দেশে এই আয়োজন ছড়িয়ে দিতে প্রতি জেলা থেকে দুজন করে মোট ১২৮ জন প্রতিনিধি উপস্থিত থাকবেন। গুগল, ফেসবুক ও টুইটারের কয়েকজন প্রতিনিধিরও এতে অংশ নেওয়ার কথা রয়েছে।

এ ছাড়া বাংলাদেশের তৃণমূল মানুষের কাছে ইন্টারনেট, কম্পিউটার এসব বিষয়ে জ্ঞান ছড়িয়ে দিতে এ মেলায় ওয়েবসাইটভিত্তিক ‘ইন্টারনেট লিটারেসি সেন্টার’ এর উদ্বোধন, ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন, বাংলা ভাষাকে ফেসবুকের অপারেটিং ল্যাংগুয়েজ হিসেবে তালিকাভুক্ত করায় ফেসবুককে ধন্যবাদ, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বাংলা ভাষার ব্যাবহার সহজতর করা এবং বাংলায় সামাজিক ভাষার ব্যাবহার সহজ করায় অভ্রকে ধন্যবাদ জানানো হবে।

আয়োজক প্রতিষ্ঠান ভার্ব ইভেন্টসের প্রধান বিপণন কর্মকর্তা অমিতাভ বড়ুয়া জানান, যারা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সচেতনতামূলক তথ্য জানিয়ে পরিচিতি পেয়েছেন, তাদের মাধ্যমে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের আরও বেশি সচেতন করার জন্য এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।