Nabodhara Real Estate Ltd.

Khan Air Travels

Premier Bank Ltd

গুলশানের সেই ঘটনা ধামাচাপা দিচ্ছে পুলিশ?

জাতীয় ডেস্ক | তারিখঃ ১৬.১০.২০১৫

রাজধানীর গুলশানে মদ্যপ অবস্থায় এক কিশোর গাড়ি চালিয়ে দুই রিকশাকে ধাক্কা দিলে এক শিশু নিহত হয় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন।

কিন্তু পুলিশ বলছে, এক শিশু পথচারি ও ২ জন রিকশাচালক আহত হন। অভিজাত এলাকায় পুলিশের ব্যাপক নিরাপত্তা সত্ত্বেও এ ধরনের ঘটনায় সরকারের উচ্চ মহলে ভাবিয়ে তুলেছে। পুলিশ গাড়িটি আটক করলেও অভিযুক্ত কিশোরকে এ ঘটনা থেকে আড়াল করতে পুলিশের গুলশান বিভাগের পদস্থ কর্মকর্তা ‘উঠে পড়ে লেগেছেন’ বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। মদপ্য অবস্থায় গাড়ি চালিয়েছেন সাবেক সংসদ সদস্য ডা. এইচ বি এম ইকবালের ভাতিজা ফারিজ রহমান (১৬)। পুলিশের গুলশান বিভাগের উপ-কমিশনার মোশতাক আহমেদ খান গতকাল বৃহস্পতিবার ইত্তেফাককে বলেন, ফারিজের গাড়ির ধাক্কায় কোনো শিশু নিহত হয়নি। তবে গাড়িটি ২ রিকশাকে ধাক্কা দিয়েছে বলে পুলিশ গাড়ি আটক করেছে। এ ঘটনায় আহতদের সঙ্গে ফারিজ আহমেদের পরিবার সমঝোতা করেছে। আহতদের পক্ষ থেকে মামলা হয়নি বলেই ফারিজ রহমানের বিরুদ্ধে পুলিশ কোনো ব্যবস্থা নিতে পারেনি। কেউ মামলা করলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সোমবার বিকাল পৌনে ৪টার দিকে গুলশানের ৭৪ নম্বর সড়কে দুই বন্ধুর কার রেসিংয়ের সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেললে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ফারিজ তার বাবা এইচ বি এম জাহিদুর রহমানের বিএমডব্লিউ গাড়ি চালাচ্ছিল। গাড়িটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুইটি রিকশাকে পিছন থেকে ধাক্কা দিয়ে পাশের ফুটপাতের সড়ক বাতিতে সজোরে ধাক্কা দেয়। এ সময় এক রিকশায় এক মহিলা যাত্রীর কোলে থাকা তিন বছরের শিশু ঘটনাস্থলেই মারা যায়। বিষয়টি নিয়ে ফারিজের পরিবারের পক্ষ থেকে মধ্যস্থতা করা হয়। একই সময় গুলশানের শাহাজাদপুরে একটি বাস চাপায় শিশু নিহত হয়। পুলিশ গুলশানের ৭৪ নম্বর সড়কের ঘটনাটি ধামাচাপা দিয়ে শাহাজাদপুরে বাস চাপায় শিশু নিহত হওয়ার ঘটনাটি গণমাধ্যমের কাছে জানায়। এমনকি ৭৪ নম্বর সড়কে নিহত শিশুর লাশ ময়না তদন্তের ব্যবস্থা না করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে। গুলশান থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম বলেন, গুলশান ৭৪ নম্বর সড়কে গত সোমবার কোনো দুর্ঘটনায় শিশু নিহতের ঘটনা ঘটেনি। তবে সাবেক সংসদ সদস্যের একজন ভাতিজা মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি চালিয়ে ২ জন রিকশা চালককে আহত করেছিল। বিষয়টি তদন্তাধীন রয়েছে।