Print

বিডিনিউজডেস্ক.কম 
তারিখঃ ২৫.০৬.২০১৫ 
অবশেষে সাত লাখ ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার পুলিশের সেই কর্মকর্তা মাহফুজুর রহমান আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। এদিকে গ্রেপ্তার ইয়াবা ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিনের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

ফেনী সদর কোর্টের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আলমগীর মোহাম্মদ ফারুকীর আদালতে ঘটনার সাথে নিজের সম্পৃক্ততা স্বীকার করে জবানবন্দি মাহফুজুর রহমান।

ফেনী কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক মাঈনুদ্দিন আহম্মেদ জবানবন্দির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ জানায়, ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার এএসআই মাহফুজুর রহমানের তিন দিন ও গাড়ি চালক জাবেদ আলীর দুই দিনের রিমান্ড শেষে বুধবার দুপুরে তাদের আদালতে হাজির করে পুলিশ। এ সময় এএসআই মাহফুজুর রহমান ইয়াবা ব্যবসায় নিজের সম্পৃক্ততা স্বীকার করেন এবং তার সহযোগীদের নাম উল্লেখ করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

ফেনী মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মো. শাহীনুজ্জামান জানান, এ মামলার এজহারভুক্ত আসামি ইয়াবা ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিনকে মঙ্গলবার রাতে কুমিল্লার দেবিদ্বার এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। বুধবার তাকে আদালতে হাজির করে ব্যবসায়ী গিয়াস ও গাড়ি চালক জাবেদ আলীর সাত দিনের রিমান্ড চাইলে বিচারক জাবেদ আলীর দুই দিন ও গিয়াস উদ্দিনের তিন দিন রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

অন্যদিকে, স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়ার পর এএসআই মাহফুজুর রহমানকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

এর আগে, গত ২২ জুন একই আদালতে এএসআই মাহফুজুর রহমান ও চালক জাবেদ আলীর রিমান্ড চেয়েছিলেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা।

 

 

 

 

                                                                                                                                                                                                                    সুত্রঃসময়ের কণ্ঠস্বর