Bangladesh Manobadhikar Foundation

Khan Air Travels

Premier Bank Ltd

বিডিনিউজডেস্ক.কম | তারিখঃ ২৭.০৭.২০১৫ 
স্বল্প খরচেই ঘুরে আসা সম্ভব স্বর্ণের দেশ দুবাইতে। তবে খরচের বিষয়টি নিয়ন্ত্রণে রাখতে আপনার থাকতে হবে পূর্ব পরিকল্পনা।

জেনে নিন স্বল্প বাজেট পরিকল্পনা করে দুবাইতে ভ্রমণের বিষয়ে-

১. দুবাইতে ভ্রমণের ক্ষেত্রে অবশ্যই আগে বুকিং করে নেয়া ভালো।সেক্ষেত্রেও কিছু বিশেষ বিষয় খেয়াল রাখতে হবে। হোটেল বুকিংয়ের ক্ষেত্রে ব্যয়বহুল হোটেলগুলোর সাইটে না যাওয়াই ভালো। তার বদলে airbnb.co.in, vrbo.com, 9flats.com সাইটগুলোতে যেতে পারেন। এরা আপনার জন্য কম খরচে হোটেল বা অ্যাপার্টমেন্টে থাকার ব্যবস্থা করবে। এদের সাইট থেকেই অনলাইনে বিস্তারিত জেনে নিতে পারবেন।

২. দুবাই ভ্রমণে গেলে বুর্জ খলিফাতে ভ্রমণ করবেন না, তা কি হয়? তবে আপনার জানা উচিত, বুর্জ খলিফায় ভ্রমণের আগেই আপনার সেজন্য আবেদন করতে হবে এবং একটি ‘টাইম স্লট’ নিয়ে নিতে হবে। আর বুকিংয়ের সময় সূর্যোদয়ের সময়টি নিতে পারলে সবচেয়ে মনোমুগ্ধকর দৃশ্য দেখতে পাবেন।

৩. দুবাই বেড়াতে গেলে মরুভূমিতে সাফারি ভ্রমণ করতে কারো ভুল হওয়ার কথা নয়। আর এক্ষেত্রে বহু প্যাকেজ টুরই রয়েছে, যারা দুবাইতে সাফারি ভ্রমণ করায়। অধিকাংশ সাফারি ভ্রমণেই থাকে বালিয়াড়ি ভ্রমণ, বেলি ড্যান্স, শিশা, তনুরা ড্যান্স, কোয়াড বাইক ভ্রমণ এবং খাবার। তবে মূল পার্থক্য থাকে তারা আপনাকে কোথায় নিয়ে যাচ্ছে এবং কি খাওয়াচ্ছে তার ওপর। এক্ষেত্রে শারজাহ থেকে বাইরে যাওয়াই ভালো। আর আগে থেকে ভ্রমণের বিস্তারিত জানালে দরদামেও সুবিধা হবে।

৪. পার্কে অ্যাডভেঞ্চার করার জন্য দুবাইতে রয়েছে অ্যাডভেঞ্চার ওয়ার্ল্ড। দুবাই শহর থেকে এক ঘণ্টার ড্রাইভিংয়ে সেখানে যাওয়া যেতে পারে। সেখানে রয়েছে ফরমুলা রোসা নামে বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুতগামি রোলার কোস্টার। সব বয়সীদের জন্যই সেখানে নানা অ্যাডভেঞ্চার রাইড রয়েছে। এ রাইডগুলোও অনলাইনে বুকিং দেওয়া যায়।

৫. দুবাই বহু আগে থেকেই সমুদ্রের জন্য বিখ্যাত। আর এ পানির জগৎ ভ্রমণের জন্য একটি আকর্ষণীয় স্থানও বটে। দুবাইতে তাই রয়েছে ইয়েলো বোট রাইডস। এ ভ্রমণে দেখা যাবে পাম দ্বীপ, বুর্জ আল আরব, দুবাই মেরিনা ও পাম লেগুন। এ ভ্রমণও অনলাইনে করে রাখা যায়।

৬. দুবাইতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নিজস্ব পরিবেশে কেনাকাটার জন্য রয়েছে গ্লোবাল ভিলেজ। এখানে বিভিন্ন পরিবেশে রয়েছে ৩০টি প্যাভিলিয়ন। এসব প্যাভিলিয়নে গেলে বিভিন্ন দেশের পরিবেশ ও সংস্কৃতির পরিচয় পাওয়া যাবে।

৭. দুবাইতে রয়েছে বহু পুরনো বাজার বা সৌকস। এগুলো প্রাচীন দুবাইয়ের দিকে তাকানোর একটি উপায়ও বটে। দুবাইয়ের স্বণের বাজারে পাওয়া যাবে কমদামে স্বর্ণ।

৮. দুবাই গাড়িপ্রেমীদের জন্য একটি তীর্থস্থান বলা যেতে পারে। এ শহরে রয়েছে মূল্যবান ফেরারি, স্বর্ণের রেঞ্জ রোভার, রোলস রয়েস ও নানা এ ধরনের গাড়ি। এ গাড়িগুলো ছাড়াও রয়েছে প্রাইভেট বিলাসবহুল ইয়ট।