Print

লভ্যাংশের করমুক্ত সীমা ৩০ হাজার টাকা করার প্রস্তাব

বিডিনিউজডেস্ক ডেস্ক | ১৮.০৪.২০১৬

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানির লভ্যাংশ থেকে প্রাপ্ত অর্থের করমুক্ত আয়ের সীমা ২৫ হাজার টাকা

থেকে বাড়িয়ে ৩০ হাজার টাকা প্রস্তাব করেছেন ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের (ডিসিসিআই) সভাপতি হোসেন খালেদ।  

শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ বৃদ্ধি ও স্থিতিশীল করতে আগামী অর্থবছরের (২০১৬-১৭) বাজেটে একগুচ্ছ সুবিধা বাড়ানোর প্রস্তাব করেছে ব্যবসায়ী সংগঠনগুলো।

লভ্যাংশ থেকে প্রাপ্ত আয়ের করসীমা ছাড়াও মার্চেন্ট ব্যাংক, তালিকাভুক্ত কোম্পানি ও ব্রোকারেজ হাউসের করহার কমানোরও প্রস্তাব করেছেন ব্যবসায়ীরা।

রাজধানীর সেগুনবাগিচায় জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সম্মেলন কক্ষে গতকাল রোববার বিকেলে আগামী অর্থবছরের (২০১৬-১৭) বাজেট নিয়ে আলোচনায় বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা এসব প্রস্তাব দেন।

আলোচনায় মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ (এমসিসিআই), ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ (ডিসিসিআই) ও বাংলাদেশ চেম্বার অব ইন্ডাস্ট্রিজের (বিসিআই) নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

ব্যবসায়ীরা মার্চেন্ট ব্যাংকের করের হার সাড়ে ৩৭ থেকে কমিয়ে ৩৫ শতাংশ করার দাবি করেছেন। শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানির করপোরেট করের হার সাড়ে ২৭ থেকে কমিয়ে ২৫ শতাংশ এবং ব্রোকারেজ হাউসের করহার ৩৫ থেকে কমিয়ে ৩০ শতাংশ করার প্রস্তাব করেছে ডিসিসিআই।

এমসিসিআইর নেতারা শেয়ারবাজারে স্থিতিশীলতা আনতে স্লাবভিত্তিক ক্যাপিটাল গেইন ট্যাক্স আরোপের প্রস্তাব দেন।

বন্ড সুবিধা প্রদান ও কার্যকরের ক্ষেত্রে সুস্পষ্ট নীতিমালা প্রণয়ন ও কঠোর তদারকির প্রস্তাব করেন বিসিআইর সহসভাপতি মো. সামসুর রহমান।