Print

টানা পাঁচ কার্যদিবস দরপতন

বিডিনিউজডেস্ক ডেস্ক | তারিখঃ ২৭.০৪.২০১৬

গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস থেকে চলতি সপ্তাহের চতুর্থ কার্যদিবস পর্যন্ত দেশের উভয় পুঁজিবাজারে দরপতন অব্যাহত রয়েছে।

এতে বিনিয়োগকারীদের ক্ষতি হয়েছে ৫ হাজার ৬৫৬ কোটি টাকার বেশি। বুধবার (২৭ এপ্রিল) ঢাকার বাজারে সূচক কমেছে ৪৩ পয়েন্ট, চট্টগ্রামের বাজারে কমেছে ৮৮ পয়েন্ট। পাশাপাশি কমেছে বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারের দাম ও বাজার মূলধন। এর আগের সর্বশেষ ২০ এপ্রিল (বুধবার) উভয় বাজারের সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় লেদেন হয়েছে।

বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের নিষ্ক্রিয়তার পাশাপাশি সাধারণ বিনিয়োগকারীদের মধ্যে আস্থার সংকটের কারণে পুঁজিবাজারে দরপতন হচ্ছে। পুঁজিবাজারে ব্যাংকগুলোর বিনিয়োগের সময়সীমা বাড়ানো নিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের টালবাহানাকে দরপতনের প্রধান কারণ মনে করা হচ্ছে। আগের চারদিনের মতো সপ্তাহের চতুর্থ কার্যদিবস বুধবার দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৪২ দশমিক ৯৮ পয়েন্ট কমে চার হাজার ২৩৮ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। ডিএস-৩০ সূচক ১৪ দশমকি ২২ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৬৩২ পয়েন্টে এবং ডিএসইএস শরীয়াহ সূচক ১০ দশমিক ৬ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৩৪ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

এদিন ডিএসইতে লেনদেন হওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে দাম বেড়েছে ৫৩টির, কমেছে ২২৪টির ও অপরিবর্তিত রয়েছে ৪০টি কোম্পানির শেয়ারের দাম। দিন শেষে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৩৫৬ কোটি টাকা। আগেরদিন লেনদেন হয়েছিলো ৩৪৩ কোটি টাকা। যা আগের দিনের চেয়ে ১৩ কোটি টাকা বেশি।

এদিকে ডিএসইর বাজার মূলধন ৫ হাজার ৬৫৬ কোটি ৭৩ লাখ ৩৪ হাজার টাকা কমে দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ২ হাজার ৩৮২ কোটি ৯৮ লাখ ৫৯ হাজার টাকায়। দেশের অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক আগের দিনের চেয়ে ৮৮ পয়েন্ট কমে ৭ হাজার ৯২৭ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। এদিন সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২৭ কোটি ৬৮ লাখ টাকা। লেনদেন হওয়া ২৩৬টি কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ৩৮টির, কমেছে ১৬৭টির ও অপরিবর্তিত রয়েছে ৩১টি কোম্পানির শেয়ারের দাম।