Print

ভোলায় মাসব্যাপী কৃষি শিল্প ও বাণিজ্য মেলা আজ শুরু

বিডিনিউজডেস্ক ডেস্ক | ০৭.০৪.২০১৬

ভোলার গজনবী স্টেডিয়াম মাঠে শুরু হয়েছে কৃষি শিল্প ও বাণিজ্য মেলা।

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ আজ সকালে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এ মেলার উদ্বোধন করবেন। ভোলা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ এ মেলার আয়োজন করেছে। মেলার সার্বিক ব্যবস্থাপনায় রয়েছে মনিপুরী তাঁতশিল্প ও জামদানি-বেনারসি কল্যাণ ফাউন্ডেশন। আয়োজক সংগঠনের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, মেলার প্রায় সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।সোমবার দুপুরে ভোলার গজনবী স্টেডিয়াম মাঠের মেলা প্রাঙ্গণে সরেজমিনে দেখা যায়, সৌন্দর্য বর্ধনে মাঠের মাঝখানে একটি পানির ফোয়ারা তৈরি করা হয়েছে। মাঠের চারদিকে নির্মাণ করা হয়েছে বিভিন্ন পণ্যের স্টল, রয়েছে রেস্টুরেন্টের স্টল। তবে, নির্মাণ শ্রমিকদের এখনো প্রবেশ পথের ফটক, সার্কাসসহ শিশুদের বিনোদনের জন্য বিভিন্ন স্টল তৈরির কাজ করতে দেখা গেছে। এ ব্যাপারে মেলা বাস্তবায়কারী সংস্থা মনিপুরী তাঁতশিল্প ও জামদানি-বেনারসি কল্যাণ ফাউন্ডেশনের পরিচালক তারেক আহমেদ জানান, মাসব্যাপী অনুষ্ঠিত কৃষি শিল্প ও বাণিজ্য মেলার প্রায় সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। মাঠের ভেতরে বিভিন্ন রাইডারের কাজ এখনো চলছে।মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে মেলার উদ্বোধন করেন। মেলা প্রাঙ্গণে ১১০টি স্টল নির্মাণের কাজ শেষ হয়েছে। এসব স্টলে কৃষি ও শিল্পসহ দেশীয় বিভিন্ন পণ্যের পসরা বসানো হবে। এ ছাড়া লায়ন সার্কাস, শিশুদের বিনোদনের জন্য আকর্ষণীয় বিভিন্ন রাইড থাকবে বলেও জানান এ কর্মকর্তা। মনিপুরী তাঁতশিল্প ও জামদানি-বেনারসি কল্যাণ ফাউন্ডেশনে আব্দুল গাফফার, আমির হোসেন এবং ফজলুল হক জুয়েলও রয়েছেন। মেলায় প্রবেশের জন্য জনপ্রতি ১০ টাকা প্রবেশমূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে। ভোলা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সভাপতি ও জেলা পরিষদ প্রশাসক আবদুল মমিন টুলু জানান, বিভিন্ন স্থান থেকে আসা মেলার স্টলগুলোতে কৃষি, ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পসামগ্রী ছাড়াও নানা ধরনের পণ্যের সমাহার ঘটবে। এ ছাড়া মেলায় দর্শনার্থীদের বিনোদনের জন্য সার্কাস, বিভিন্ন রাইড ও র‍্যাফেল ড্র'র ব্যবস্থা থাকবে। মেলায় প্রবেশের জন্য দর্শনার্থীদের অবশ্যই নির্ধারিত মূল্যে টিকিট কিনতে হবে। তবে পাঁচ বছরের কম বয়সীদের প্রবেশে কোনো টিকিট লাগবে না। মেলার গুরুত্বপূর্ণ স্থানে সার্বক্ষণিক নিরাপত্তার জন্য সিসি ক্যামেরা স্থাপনের ব্যবস্থা করা হয়েছে।