মুদ্রণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক  | তারিখঃ  ১৬.০৮.২০১৫

গত শুক্রবার রাত থেকে দেশটির রাজধানী কুইটোর কাছে কটোপাক্সি আগ্নেয়গিরি থেকে ছাই ও ধোঁয়ার উদগিরণ শুরু হয় ফলে

জরুরি অবস্থার ঘোষণা দেন দেশটির প্রেসিডেন্ট রাফায়েল কোরিয়া। পাঁচ হাজার ৮৯৮ মিটার উচ্চতার কটোপাক্সি পর্বতমালার এই আগ্নেয়গিরি পৃথিবীর ভয়ংকরতম অগ্নিগহ্বরগুলোর মধ্যে অন্যতম। চলতি শতকের শুরুর দিকে এই আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাতে চার হাজারের বেশি মানুষ মারা গিয়েছিল।

এর আগে ১৮৭৭ সালে ভয়ংকর অগ্ন্যুৎপাতে জনবসতিসহ ইকুয়েডরের বিস্তীর্ণ বনাঞ্চল ছাই হয়ে গিয়েছিল। এরই মধ্যে আগ্নেয়গিরি থেকে বের হওয়া ধোঁয়ার প্রভাবে আশপাশের প্রায় ৩০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে ছাই ছড়িয়ে পড়েছে। আর আজ সকালে পাঁচ কিলোমিটার দূর থেকে অগ্ন্যুৎপাতের আগুন দেখা যাচ্ছে।ইকুয়েডরের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের সূত্রে বিবিসি জানিয়েছে, ৩০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে ধোঁয়া ও ছাই ছড়ালেও রাজধানী কুইটোসহ আশপাশের ১০০ কিলোমিটারের বেশি অঞ্চলজুড়ে ছড়িয়েছে অগ্ন্যুৎপাতের প্রভাব। পরিস্থিতি সামাল দিতে সম্ভাব্য সকল পদক্ষেপই নেওয়া হয়েছে। এরই মধ্যে আশপাশে এলাকা থেকে লোকজনকে নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।