Saturday 3rd of December 2016

সদ্য প্রাপ্তঃ

***বাংলাদেশ ভারত সীমান্তে স্মার্ট বেড়া,উঠিয়ে নেওয়া হচ্ছে বিএসএফ টহল***

Bangladesh Manobadhikar Foundation

Khan Air Travels

UCB Debit Credit Card

বরিশালে চুরির অপবাদে ২ শিশুকে গাছে বেঁধে নির্যাতন

বিডিনিউজডেস্ক ডেস্ক | তারিখঃ ২৪.০৪.২০১৬ 

বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলায় কবুতর চুরির মিথ্যা অপবাদে স্থানীয় ইউপি সদস্যর নেতৃত্বে দুই শিশুকে গাছের সঙ্গে বেঁধে মধ্যযুগীয় নির্যাতন করা হয়েছে।

গুরুতর আহতাবস্থায় এক শিশুকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্য আহত ছাত্রকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ ঘটনায় আহত শিশুর পরিবার থেকে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।নির্যাতনের শিকার দুই ছাত্র হলো- উপজেলার ছোট বাশাইল গ্রামের খোকন বেপারীর ছেলে ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র সাগর বেপারী (১০) এবং একই এলাকার মোহাম্মাদ আলী শিকদারের ছেলে ও বাশাইল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র তুষার শিকদার (১২)।জানা গেছে, সাগর বেপারী ও তুষার শিকদারকে কবুতর চুরির মিথ্যা অপবাদে শুক্রবার বিকালে ছোট বাশাইল কালুশাহ মাজারের উত্তর পাশে নারকেল গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন করা হয়।রাজিহার ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের নব নির্বাচিত ইউপি সদস্য ও ওয়ার্ড বিএনপির প্রচার সম্পাদক মো. বরকত উল্লাহর নেতৃত্বে স্থানীয় নাসির চৌকিদার মিলে তিন ঘন্টাব্যাপি এ দুই শিশুর ওপর নির্যাতন চালায়।ছেলে নির্যাতনের সংবাদ শুনে সাগরের মা রওশনারা বেগম ঘটনাস্থলে এসে ইউপি সদস্যের কাছে অনুরোধ করে ছেলেকে নিয়ে বাড়ি চলে যেতে চাইলেও নির্যাতনকারীরা তার কথায় কোনো কর্নপাত করেননি।ছেলেকে মারধরের প্রতিবাদ করায় চুন্নু চৌকিদারের ছেলে নাসির চৌকিদার সাগরের মা রওশনারা বেগমকে তার বাড়ি গিয়ে মারধর করে।পরে সাগরের মা রওশনারা বেগম আহত দুই শিশুকে উদ্বার করে গুরুতর অবস্থায় সাগরকে উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করে। এ সময় তুষারকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।সাগরের মা রওশনারা বেগম সাংবাদিকদের জানান, আমার ছেলেকে ইউপি সদস্য গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন করেছে, আমি এর উপযুক্ত বিচার চাই।অভিযুক্ত মেম্বর বরকত উল্লাহ বলেন, আমি নির্যাতন করিনি। অন্যরা শিশুদের নির্যাতন করেছে।এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান মো.ইলিয়াস তালুকদার সাংবাদিকদের জানান, এই নির্যাতনের ঘটনা আমার জানা নেই। তবে ওসি আমাকে ফোনের মাধ্যমে জানিয়েছেন।আগৈলঝাড়া থানার ওসি মো. মনিরুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। নির্যাতিতদের পরিবার থেকে মামলা করলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।