মুদ্রণ

চা-পানি পান করে টানা ৩৫ বছর!
বিডিনিউজডেস্ক.কম | তারিখঃ ১৬.১০.২০১৫

এক মহিলা শুধু চা-পানি পান করেই কাটিয়েছেন ৩৫ বছর!ভারতের পশ্চিমবঙ্গের হুগলি জেলার গোঘাটের বাসিন্দা ষাটোর্ধ্ব অনিমা চক্রবর্তী। স্রেফ চা, পানি আর হরলিক্স খেয়েই দিব্যি জীবন কাটিয়ে দিচ্ছেন তিনি।

শেষ ৩৫ বছর চা-পানি আর হরলিক্স ছাড়া কিছুই খাননি অনিমা চক্রবর্তী।অনিমা চক্রবর্তীর জীবনকাহিনী একটু ব্যতিক্রমও বটে। ৪৫ বছর আগে স্বামীর সংসারে আসার পর দারিদ্র্য তাকে পিছু ছাড়েনি। স্বামী গোপাল চক্রবর্তী ছিলেন একজন পুরোহিত। বিভিন্ন যজমানের বাড়িতে পূজা-অর্চনা করে কোনো মতে চলতো তাদের সংসার।অনিমা চক্রবর্তীর স্বামীর কাজে সাহায্য করতে একসময় তার নিজের গ্রাম হতে প্রায় দেড় কিলোমিটার দূরবর্তী পাণ্ডুগ্রামে একটি বাড়িতে রান্নার কাজ নেন। তাতেও সংসারে সচ্ছলতা ফিরে না আসায় দিনের বাকি সময় এলাকার বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে মুড়ি ভাজার কাজ নেন।
হাড়ভাঙা এমন পরিশ্রমের কাজ করতে গিয়ে অনিমার খাওয়া-দাওয়া অনিয়মিত হয়ে যায়। এমন দিনও যায়, যেদিন নিজে আনাহারে থেকেও পরিবারের মুখে অন্ন তুলে দিয়েছেন।এমন অবস্থায় যেদিন খাবার জুটেছে, ঠিক সেদিনই হয়তো আধা পেট খেয়েছেন। টানা ৫ দিন তিনি কিছুই খেতে পারেননি। এ অবস্থায় হঠাৎ অনিমা একদিন অসুস্থ হয়ে পড়েন।ভাত, মুড়ি, রুটি যাই খান সবই বমি হয়ে যায়। চিকিৎসকের কাছে গেলে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর জানিয়ে দেন, তার পেটে গ্যাস্ট্রিক আলসার হয়েছে। এ রোগের চিকিৎসার সামর্থ্য তার ছিল না।
যে কারণে বাধ্য হয়ে ভারী খাবার ছেড়ে দিয়ে শুধু তরল জাতীয় খাবার খেতে শুরু করেন অনিমা। এভাবে একসময় তিনি সুস্থ হয়ে ওঠেন।এরপর কেটে গেছে তার দীর্ঘ ৩৫টি বছর। হিসাব কষে অনিমা চক্রবর্তী দেখেন, তার ৩৫টি বছর শুধু চা-পানি পান করেই কেটেছে।

 

 

 


সুত্রঃ ভোরের কাগজ