Saturday 10th of December 2016

সদ্য প্রাপ্তঃ

***বিপিএল টি-টুয়েন্টি ক্রিকেট চতুর্থ আসরের ফাইনালে আজ শুক্রবার মুখোমুখি হবে ঢাকা ডায়নামাইটস ও রাজশাহী কিংস***

Bangladesh Manobadhikar Foundation

Khan Air Travels

UCB Debit Credit Card

বিডিনিউজডেস্ক ডেস্ক | ১৭.০৪.২০১৬

চট্টগ্রামে অপহৃত কলেজছাত্রী ইসরাত জাহান এ্যানির সন্ধান মেলেনি এক মাসেও।

গত ১৬ মার্চ তিনি নগরীর সরাইপাড়া সিটি কপোরেশন ডিগ্রি কলেজে যাওয়ার পথে অপহৃত হন। অপহরণকারীরা একাধিকবার পরিবারের লোকজনকে মোবাইলে ফোন করে ২০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করছে। দাবি পূরণ না করলে এ্যানির অশ্লীল ছবি ভিডিওচিত্র ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেবে বলে হুমকি দিচ্ছে। এক দিকে যেমন অপহৃত মেয়েকে না পেয়ে বাবা-মা অস্থির হয়ে উঠেছেন, তেমনি মেয়ের অশ্লীল ভিডিওচিত্র নিয়ে উৎকণ্ঠায় রয়েছে পরিবারটি।এ্যানির বাবা এনামুল হক নয়া দিগন্তকে জানান, ‘তার মেয়ে কলেজে যাওয়ার পথে ঢাকার মিরপুর এলাকার আবদুর বশির রাহাতের নেতৃত্বে একদল অপহরণকারী তাকে জোর করে মাইক্রোবাসে উঠিয়ে নিয়ে যায়। এ সময় এ্যানির সাথে থাকা তার বান্ধবীরা বাধা দিলে তাদের ওপরও হামলা করে। ১৯ মার্চ এ্যানির মোবাইল থেকে ফোন করে অপহারণকারীরা ২০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে।’এনামুল হক জানান, ‘মুক্তিপণ না পেলে অপহরণকারীরা তার মেয়ের অশ্লীল ভিডিওচিত্র ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ছড়িয়ে দেবে বলে হুমকি দিয়েছে। এ ছাড়া তাকে হত্যা করারও হুমকি দিয়েছে তারা। ’এ ঘটনায় নগরীর হালিশহর থানায় এ্যানির বাবা এনামুল হক বাদি হয়ে ঢাকার মিরপুরের অ্যারিস্টো গোলা এলাকার মৃত আবদুল ওহাবের ছেলে আবদুর বশির রাহাতের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত ছয়জনকে আসামি করে একটি অপহারণ মামলা করেছেন। এ ঘটনায় পুলিশ অপহরণকারী রাহাতের বাসায় অভিযান চালিয়ে তার মাকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠিয়েছে।’মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা হালিশহর থানার উপপরিদর্শক মোহাম্মদ মাহবুব মোরশেদ নয়া দিগন্তকে বলেন, ‘অপহরণকারী চক্রটিকে আমরা প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে চিহ্নিত করতে পেরেছি। তবে তারা বারবার স্থান বদলানোর কারণে গ্রেফতার করা সম্ভব হচ্ছে না। তবে অপহরণকারী দলের প্রধান রাহাতের মাকে গ্রেফতার করেছি। সে এ্যানি অপহরণের বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে। এ দিকে, এ্যানির মা শিরীন আক্তার নয়া দিগন্তকে বলেন, ‘অপহরণকারীরা ২০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করছে। এত টাকা কেমন করে দিই! মেয়ের অশ্লীল ভিডিও ধারণ করে সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে দেবে বলে হুমকি দিচ্ছে। এ রকম কিছু ঘটলে আমরা স্বামী-স্ত্রীর আত্মহত্যা করা ছাড়া কোনো পথ থাকবে না।’শিরীন আক্তার বলেন, অপহরণকারীরা দশম শ্রেণী পড়ুয়া আমার ছোট মেয়ে শান্তা ও ছোট ছেলে সোহাগকে অপহরণ করে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে। তাই তাদের স্কুলে যাওয়া এখন বন্ধ করে দিতে হয়েছে।

চট্টগ্রামে অপহৃত কলেজছাত্রী ইসরাত জাহান এ্যানির সন্ধান মেলেনি এক মাসেও। গত ১৬ মার্চ তিনি নগরীর সরাইপাড়া সিটি কপোরেশন ডিগ্রি কলেজে যাওয়ার পথে অপহৃত হন। অপহরণকারীরা একাধিকবার পরিবারের লোকজনকে মোবাইলে ফোন করে ২০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করছে। দাবি পূরণ না করলে এ্যানির অশ্লীল ছবি ভিডিওচিত্র ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেবে বলে হুমকি দিচ্ছে। এক দিকে যেমন অপহৃত মেয়েকে না পেয়ে বাবা-মা অস্থির হয়ে উঠেছেন, তেমনি মেয়ের অশ্লীল ভিডিওচিত্র নিয়ে উৎকণ্ঠায় রয়েছে পরিবারটি।
এ্যানির বাবা এনামুল হক নয়া দিগন্তকে জানান, ‘তার মেয়ে কলেজে যাওয়ার পথে ঢাকার মিরপুর এলাকার আবদুর বশির রাহাতের নেতৃত্বে একদল অপহরণকারী তাকে জোর করে মাইক্রোবাসে উঠিয়ে নিয়ে যায়। এ সময় এ্যানির সাথে থাকা তার বান্ধবীরা বাধা দিলে তাদের ওপরও হামলা করে। ১৯ মার্চ এ্যানির মোবাইল থেকে ফোন করে অপহারণকারীরা ২০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে।’
এনামুল হক জানান, ‘মুক্তিপণ না পেলে অপহরণকারীরা তার মেয়ের অশ্লীল ভিডিওচিত্র ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ছড়িয়ে দেবে বলে হুমকি দিয়েছে। এ ছাড়া তাকে হত্যা করারও হুমকি দিয়েছে তারা। ’
এ ঘটনায় নগরীর হালিশহর থানায় এ্যানির বাবা এনামুল হক বাদি হয়ে ঢাকার মিরপুরের অ্যারিস্টো গোলা এলাকার মৃত আবদুল ওহাবের ছেলে আবদুর বশির রাহাতের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত ছয়জনকে আসামি করে একটি অপহারণ মামলা করেছেন। এ ঘটনায় পুলিশ অপহরণকারী রাহাতের বাসায় অভিযান চালিয়ে তার মাকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠিয়েছে।’
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা হালিশহর থানার উপপরিদর্শক মোহাম্মদ মাহবুব মোরশেদ নয়া দিগন্তকে বলেন, ‘অপহরণকারী চক্রটিকে আমরা প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে চিহ্নিত করতে পেরেছি। তবে তারা বারবার স্থান বদলানোর কারণে গ্রেফতার করা সম্ভব হচ্ছে না। তবে অপহরণকারী দলের প্রধান রাহাতের মাকে গ্রেফতার করেছি। সে এ্যানি অপহরণের বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে।
এ দিকে, এ্যানির মা শিরীন আক্তার নয়া দিগন্তকে বলেন, ‘অপহরণকারীরা ২০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করছে। এত টাকা কেমন করে দিই! মেয়ের অশ্লীল ভিডিও ধারণ করে সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে দেবে বলে হুমকি দিচ্ছে। এ রকম কিছু ঘটলে আমরা স্বামী-স্ত্রীর আত্মহত্যা করা ছাড়া কোনো পথ থাকবে না।’
শিরীন আক্তার বলেন, অপহরণকারীরা দশম শ্রেণী পড়ুয়া আমার ছোট মেয়ে শান্তা ও ছোট ছেলে সোহাগকে অপহরণ করে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে। তাই তাদের স্কুলে যাওয়া এখন বন্ধ করে দিতে হয়েছে। - See more at: http://www.dailynayadiganta.com/detail/news/110711#sthash.Na6wmOVE.dpuf
চট্টগ্রামে অপহৃত কলেজছাত্রী ইসরাত জাহান এ্যানির সন্ধান মেলেনি এক মাসেও। গত ১৬ মার্চ তিনি নগরীর সরাইপাড়া সিটি কপোরেশন ডিগ্রি কলেজে যাওয়ার পথে অপহৃত হন। অপহরণকারীরা একাধিকবার পরিবারের লোকজনকে মোবাইলে ফোন করে ২০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করছে। দাবি পূরণ না করলে এ্যানির অশ্লীল ছবি ভিডিওচিত্র ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেবে বলে হুমকি দিচ্ছে। এক দিকে যেমন অপহৃত মেয়েকে না পেয়ে বাবা-মা অস্থির হয়ে উঠেছেন, তেমনি মেয়ের অশ্লীল ভিডিওচিত্র নিয়ে উৎকণ্ঠায় রয়েছে পরিবারটি।
এ্যানির বাবা এনামুল হক নয়া দিগন্তকে জানান, ‘তার মেয়ে কলেজে যাওয়ার পথে ঢাকার মিরপুর এলাকার আবদুর বশির রাহাতের নেতৃত্বে একদল অপহরণকারী তাকে জোর করে মাইক্রোবাসে উঠিয়ে নিয়ে যায়। এ সময় এ্যানির সাথে থাকা তার বান্ধবীরা বাধা দিলে তাদের ওপরও হামলা করে। ১৯ মার্চ এ্যানির মোবাইল থেকে ফোন করে অপহারণকারীরা ২০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে।’
এনামুল হক জানান, ‘মুক্তিপণ না পেলে অপহরণকারীরা তার মেয়ের অশ্লীল ভিডিওচিত্র ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ছড়িয়ে দেবে বলে হুমকি দিয়েছে। এ ছাড়া তাকে হত্যা করারও হুমকি দিয়েছে তারা। ’
এ ঘটনায় নগরীর হালিশহর থানায় এ্যানির বাবা এনামুল হক বাদি হয়ে ঢাকার মিরপুরের অ্যারিস্টো গোলা এলাকার মৃত আবদুল ওহাবের ছেলে আবদুর বশির রাহাতের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত ছয়জনকে আসামি করে একটি অপহারণ মামলা করেছেন। এ ঘটনায় পুলিশ অপহরণকারী রাহাতের বাসায় অভিযান চালিয়ে তার মাকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠিয়েছে।’
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা হালিশহর থানার উপপরিদর্শক মোহাম্মদ মাহবুব মোরশেদ নয়া দিগন্তকে বলেন, ‘অপহরণকারী চক্রটিকে আমরা প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে চিহ্নিত করতে পেরেছি। তবে তারা বারবার স্থান বদলানোর কারণে গ্রেফতার করা সম্ভব হচ্ছে না। তবে অপহরণকারী দলের প্রধান রাহাতের মাকে গ্রেফতার করেছি। সে এ্যানি অপহরণের বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে।
এ দিকে, এ্যানির মা শিরীন আক্তার নয়া দিগন্তকে বলেন, ‘অপহরণকারীরা ২০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করছে। এত টাকা কেমন করে দিই! মেয়ের অশ্লীল ভিডিও ধারণ করে সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে দেবে বলে হুমকি দিচ্ছে। এ রকম কিছু ঘটলে আমরা স্বামী-স্ত্রীর আত্মহত্যা করা ছাড়া কোনো পথ থাকবে না।’
শিরীন আক্তার বলেন, অপহরণকারীরা দশম শ্রেণী পড়ুয়া আমার ছোট মেয়ে শান্তা ও ছোট ছেলে সোহাগকে অপহরণ করে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে। তাই তাদের স্কুলে যাওয়া এখন বন্ধ করে দিতে হয়েছে। - See more at: http://www.dailynayadiganta.com/detail/news/110711#sthash.Na6wmOVE.dpuf
চট্টগ্রামে অপহৃত কলেজছাত্রী ইসরাত জাহান এ্যানির সন্ধান মেলেনি এক মাসেও। গত ১৬ মার্চ তিনি নগরীর সরাইপাড়া সিটি কপোরেশন ডিগ্রি কলেজে যাওয়ার পথে অপহৃত হন। অপহরণকারীরা একাধিকবার পরিবারের লোকজনকে মোবাইলে ফোন করে ২০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করছে। দাবি পূরণ না করলে এ্যানির অশ্লীল ছবি ভিডিওচিত্র ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেবে বলে হুমকি দিচ্ছে। এক দিকে যেমন অপহৃত মেয়েকে না পেয়ে বাবা-মা অস্থির হয়ে উঠেছেন, তেমনি মেয়ের অশ্লীল ভিডিওচিত্র নিয়ে উৎকণ্ঠায় রয়েছে পরিবারটি।
এ্যানির বাবা এনামুল হক নয়া দিগন্তকে জানান, ‘তার মেয়ে কলেজে যাওয়ার পথে ঢাকার মিরপুর এলাকার আবদুর বশির রাহাতের নেতৃত্বে একদল অপহরণকারী তাকে জোর করে মাইক্রোবাসে উঠিয়ে নিয়ে যায়। এ সময় এ্যানির সাথে থাকা তার বান্ধবীরা বাধা দিলে তাদের ওপরও হামলা করে। ১৯ মার্চ এ্যানির মোবাইল থেকে ফোন করে অপহারণকারীরা ২০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে।’
এনামুল হক জানান, ‘মুক্তিপণ না পেলে অপহরণকারীরা তার মেয়ের অশ্লীল ভিডিওচিত্র ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ছড়িয়ে দেবে বলে হুমকি দিয়েছে। এ ছাড়া তাকে হত্যা করারও হুমকি দিয়েছে তারা। ’
এ ঘটনায় নগরীর হালিশহর থানায় এ্যানির বাবা এনামুল হক বাদি হয়ে ঢাকার মিরপুরের অ্যারিস্টো গোলা এলাকার মৃত আবদুল ওহাবের ছেলে আবদুর বশির রাহাতের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত ছয়জনকে আসামি করে একটি অপহারণ মামলা করেছেন। এ ঘটনায় পুলিশ অপহরণকারী রাহাতের বাসায় অভিযান চালিয়ে তার মাকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠিয়েছে।’
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা হালিশহর থানার উপপরিদর্শক মোহাম্মদ মাহবুব মোরশেদ নয়া দিগন্তকে বলেন, ‘অপহরণকারী চক্রটিকে আমরা প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে চিহ্নিত করতে পেরেছি। তবে তারা বারবার স্থান বদলানোর কারণে গ্রেফতার করা সম্ভব হচ্ছে না। তবে অপহরণকারী দলের প্রধান রাহাতের মাকে গ্রেফতার করেছি। সে এ্যানি অপহরণের বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে।
এ দিকে, এ্যানির মা শিরীন আক্তার নয়া দিগন্তকে বলেন, ‘অপহরণকারীরা ২০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করছে। এত টাকা কেমন করে দিই! মেয়ের অশ্লীল ভিডিও ধারণ করে সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে দেবে বলে হুমকি দিচ্ছে। এ রকম কিছু ঘটলে আমরা স্বামী-স্ত্রীর আত্মহত্যা করা ছাড়া কোনো পথ থাকবে না।’
শিরীন আক্তার বলেন, অপহরণকারীরা দশম শ্রেণী পড়ুয়া আমার ছোট মেয়ে শান্তা ও ছোট ছেলে সোহাগকে অপহরণ করে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে। তাই তাদের স্কুলে যাওয়া এখন বন্ধ করে দিতে হয়েছে। - See more at: http://www.dailynayadiganta.com/detail/news/110711#sthash.Na6wmOVE.dpuf