Print

বিডিনিউজডেস্ক.কম | তারিখঃ ১০.০৮.২০১৫

বাংলাদেশ ও ভারতের ভূখণ্ডে মিশে যাওয়া ১৬২টি ছিটমহলের জমির পুরনো নথিপত্র বিনিময় করা হয়েছে।

এসব নথির মধ্যে রয়েছে এত দিন বাংলাদেশের ভেতরে থাকা ভারতের ১১১টি এবং ভারতের ভেতরে থাকা বাংলাদেশের ৫১টি ছিটমহলের জমির পুরনো রেকর্ডসহ অন্যান্য কাগজপত্র। আজ সোমবার লালমনিরহাটের বুড়িমারী স্থলবন্দরের ওপারে ভারতের চ্যাংরাবান্ধায় দুই দেশের যৌথ বৈঠক শুরুর আগে এসব নথি বিনিময় করা হয়।  এ সময় ভারতে থাকা ১১১টি ছিটমহলের জমির পুরনো নথি দেওয়া হয় বাংলাদেশকে আর বাংলাদেশ ভারতকে দিয়েছে ৫১টি ছিটমহলের জমির কাগজপত্র।  এর আগে দুপুরে বৈঠকে অংশ নিতে বুড়িমারী স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশের ১৬ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল সেখানে যায়। লালমনিরহাটের জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে যাওয়া প্রতিনিধিদলে আছেন কুড়িগ্রাম, নীলফামারী ও পঞ্চগড়ের জেলা প্রশাসকসহ অন্যরা। অন্যদিকে ভারতীয় পক্ষে নেতৃত্ব দেন কোচবিহারের জেলা শাসক পি উল্গানাথন।  ভারতে প্রবেশের আগে বুড়িমারী স্থলবন্দরে লালমনিরহাটের জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান জানান, বৈঠকে জমির নথি বিনিময় ছাড়াও বিলুপ্ত ভারতীয় ছিটমহলের যেসব বাসিন্দা সে দেশে ফিরে যেতে নাম নিবন্ধন করেছে তারা কবে, কীভাবে যাবে এবং যেসব আবেদনকারী তাদের আবেদন বাতিল করার আবেদন করেছে তাদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে। এ ছাড়া ২০১১ সালের যৌথ জরিপে বাদপড়াদের বিষয়েও আলোচনা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।