আজ শনিবার, ২৪ জুন, ২০১৭

সদ্য প্রাপ্তঃ

*** মেহেরপুর সদর উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে ১১ মামলার এক আসামির মৃত্যু * ক্রেতা সেজে দোকান থেকে মালামাল চুরির অভিযোগে চট্টগ্রামে তিন জন গ্রেপ্তার * দেশের চাহিদার ৯৮ শতাংশ ওষুধ স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত হয়: সংসদে স্বাস্থ্যমন্ত্রী * লন্ডনে হামলাকারী দুইজনের নাম জানিয়েছে পুলিশ * সাবেক প্রধান উপদেষ্টা বিচারপতি লতিফুর রহমান মারা গেছেন

Bangladesh Manobadhikar Foundation

Khan Air Travels

কারা ফটকে আবার গ্রেফতার হেফাজতের প্রচার সম্পাদক!

বিডিনিউজডেস্ক ডেস্ক | তারিখঃ ১৯.০৪.২০১৬

মুক্তি পেয়ে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় কারা ফটকে ফের গ্রেফতার হয়েছেন হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক মুফতি হারুন ইজাহার।

২০১৩ সালের অক্টোবরে চট্টগ্রামের যে মাদরাসায় বিস্ফোরণে দুই ছাত্র নিহত হয়, হারুনের বাবা হেফাজতে ইসলামের সিনিয়র নায়েবে আমির মুফতি ইজাহারুল ইসলাম মাদরাসাটি পরিচালনা করতেন। ইজাহারুল নিজেও এখন কারাবন্দি।মঙ্গলবার দুপুরে চট্টগ্রামের কেন্দ্রীয় কারাগারের গেট থেকে কোতোয়ালি থানা পুলিশ হারুনকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়।কোতোয়ালি থানার অফিসার ইনচার্জ জসিম উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আজ লালদীঘি এলাকা থেকে আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে একটি নাশকতার অভিযোগে মামলা রয়েছে। এ মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে বিকেলে আদালতে পাঠানো হবে।উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ৭ অক্টোবর মুফতি ইজাহারুল ইসলাম পরিচালিত নগরীর লালখান বাজার মাদরাসায় বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে দুই ছাত্র নিহত ও তিনজন আহত হয়। বিস্ফোরণের পরপরই পুলিশ মাদরাসাটি ঘেরাও করে চারটি তাজা গ্রেনেড এবং ১৮ বোতেল এসিড উদ্ধার করেছিল। তবে ইজাহারের পক্ষ থেকে সে সময় দাবি করা হয়েছিল, গ্রেনেড উদ্ধারের ঘটনা পুলিশের সাজানো। আর গ্রেনেড নয় আইপিএস বিস্ফোরণে এ ঘটনা ঘটেছিল।বিস্ফোরণের দুদিন পর ৯ অক্টোবর মুফতি হারুন ইজাহারকে আটকের পর এ ঘটনায় দায়ের হওয়া তিনটি এবং পরবর্তীতে নাশকতার আটটি মামলাসহ মোট ১১টি মামলায় তাকে আসামি করা হয়।সবকটি মামলায় উচ্চ আদালত থেকে জামিন আদেশ আসার পর মঙ্গলবার দুপুরে কারা কর্তৃপক্ষ তাকে মুক্তি দেয়। তবে কারাফটক থেকে তাকে আবার গ্রেফতার করে পুলিশ।