আজ সোমবার, ২৪ জুলাই, ২০১৭

সদ্য প্রাপ্তঃ

*** বনানীতে দুই তরুণীকে ধর্ষণের মামলায় আপন জুয়েলার্সের মালিকের ছেলে সাফাতসহ পাঁচজনের বিচার শুরু * ভিয়েতনাম থেকে ২০ হাজার মেট্রিক টন চালের প্রথম চালান নিয়ে বন্দরে ভিড়েছে জাহাজ * লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে সংঘর্ষে চালক নিহত * তিন দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে ঢাকায় পৌঁছেছেন শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা * সীতাকুণ্ডে নয় শিশুর মৃত্যু ও ৪৬ জনের অসুস্থতার কারণ এখনও শনাক্ত করা যায়নি * চিকিৎসকরা বলছেন, ত্রিপুরা পাড়ার অসুস্থ শিশুরা মারাত্মক অপুষ্টিতে ভুগছে * ৫৬ ইউনিয়ন পরিষদ এবং একটি করে পৌরসভা ও জেলা পরিষদের কয়েকটি ওয়ার্ডে ভোট চলছে * চট্টগ্রামে ইয়াবা ও চোলাই মদসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর * দুর্নীতির দায়ে ব্রাজিলের সাবেক প্রেসিডেন্ট লুলার সাড়ে নয় বছরের কারাদণ্ড

Bangladesh Manobadhikar Foundation

Khan Air Travels

অপসারণ ক্ষমতা সংসদ পেলে সংবিধানের ক্ষতি হবে

বিডিনিউজডেস্ক ডেস্ক | তারিখঃ ২৯.০৪.২০১৬

দলমত নির্বিশেষে সংবিধান সমুন্নত রাখতে আইনজীবীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন সংবিধানপ্রণেতা ও গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন।

তিনি বলেছেন, বিচারপতিদের অপসারণ করার ক্ষমতা সংসদকে দেওয়া হলে বিচার ও সংবিধানের অপূরণীয় ক্ষতি হবে।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে চট্টগ্রাম আইনজীবী সমিতির নবনির্বাচিত কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ মন্তব্য করেন ড. কামাল হোসেন।

আইনজীবী সমিতি মিলনায়তনে অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি কফিল উদ্দিন চৌধুরী। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন চট্টগ্রামের ভারপ্রাপ্ত জেলা ও দায়রা জজ সিরাজউদ্দৌলা কুতুবী, মহানগর দায়রা জজ মো. নূরুল হুদা, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন, বার কাউন্সিল সদস্য ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘একজন বিচারকের যদি রায় বা আদেশ দেওয়ার আগে তাঁর চাকরি নিয়ে ভাবতে হয়, তাহলে সেখানে স্বাধীনতা থাকবে না।’

বিচার বিভাগে হস্তক্ষেপের অর্থ সংবিধানে হস্তক্ষেপ উল্লেখ করে সংবিধান রক্ষায় আইনজীবীদের ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান ড. কামাল হোসেন। তিনি বলেন, রায় দেওয়ার জন্য আশঙ্কা করবেন না আমাকে সরিয়ে দেওয়া হতে পারে। এটা মৌলিক বিষয়, কেউ যদি মনে করে যে সরকারের বিরুদ্ধে রায় গেলে আমাকে সরিয়ে দিতে পারে; তখন তো সে স্বাধীনভাবে রায় দেওয়ার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলবে। রায়ের বিরুদ্ধে আপিলে যেতে পারে কিন্তু সরিয়ে দেওয়া যাবে না।