Wednesday 18th of January 2017

সদ্য প্রাপ্তঃ

***বাংলাদেশে ফাঁসির ইতিহাসে শীর্ষে বিডিআর বিদ্রোহ,সাত খুন দ্বিতীয়***

Bangladesh Manobadhikar Foundation

Khan Air Travels

শিশুর বুদ্ধিমত্তায় আটক ২ ডাকাত

বিডিনিউজডেস্ক ডেস্ক | ১৬.০৪.২০১৬ 

কিশোরগঞ্জে নুসরাত জাহান ঐশী নামে ১১ বছরের এক শিশুর সাহস ও বুদ্ধিমত্তায় আন্তঃজেলা ডাকাত ও চোর চক্রের দুর্ধর্ষ দুই সদস্যকে আটক করা হয়েছে।

আটককৃতরা হলো, সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার মঙ্গলকাটা গ্রামের ওমর আলী (৩৫) এবং একই জেলার বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার কাইতকোনা গ্রামের ফুল মিয়া (৩৫)। আন্তঃজেলা ডাকাত ও চোর চক্রের সক্রিয় এই দুই সদস্যের বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি চুরির মামলা রয়েছে। নুসরাত জাহান ঐশী কিশোরগঞ্জ জেলা শহরের শোলাকিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণীর ছাত্রী। শহরের শোলাকিয়া সরকারি পুকুরপাড় এলাকায় অবস্থিত মোল্লাবাড়ীর ৪ তলায় তারা ভাড়ায় থাকে। বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ‘পহেলা বৈশাখ’ বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে মা রুমানা আক্তার তার মেয়ে ঐশী ও একমাত্র ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে ঘরে তালা লাগিয়ে বের হয়ে যান। এ সময় রুমানা ভুল করে মুঠোফোনটি বাসায় ফেলে রেখে যান। পরিবারের সবার বাইরে যাওয়ার সুযোগে আন্তঃজেলা চোরদলের দুই সক্রিয় সদস্য ওমর আলী ও ফুল মিয়া তালা ভেঙে ঘরে ঢুকে মাত্র ৪০ মিনিটের ব্যবধানে আলমারি, ওয়্যারড্রবসহ সব কিছু তছনছ করে। পরে দুই চোর মোবাইল, গলার চেইনসহ গহনা নিয়ে বের হওয়ার প্রস্তুতি নেয়। এমন সময় ঐশী ফোন নিতে এসে চারতলায় উঠে নিজেদের ফ্ল্যাটে দরজায় তালা নেই দেখতে পায়। মেয়েটির মাথায় কাজ করে নিশ্চয়ই ঘরে চোর ঢুকেছে। এ সময় সে ‘আমাদের ঘরে চোর ঢুকেছে’ বলে চিৎকার করতে থাকে। শিশুটির চিৎকার শুনে দুই চোর বের হয়ে রুমাল দিয়ে শিশু ঐশীর মুখ চেপে ধরার চেষ্টা করে। ঐশী দ্রুত সিঁড়ি বেয়ে চিৎকার দিয়ে নিচে নামতে থাকে। এ সময় বাসার অন্য ফ্ল্যাটের লোকজন এসে ২ চোরকে আটকে ফেলে। পরে পুলিশ এসে তাদের থানায় নিয়ে যায়। এ ঘটনায় ঐশীর মা রুমানা আক্তার বাদী হয়ে কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানায় গতকাল মামলা করেছেন। ঐশীর বাবা শাহেদ মিয়া ব্যবসায়ী। তিনি দেশের বিভিন্ন স্থানে বাণিজ্যমেলায় ব্যবসা করে আসছেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আবুল কালাম বলেন, ঐশীর বুদ্ধিমত্তায় দুর্ধর্ষ দুই চোর ধরা পড়েছে। ধৃত দুই চোরদের বিভিন্ন ভিডিও ফুটেজে চুরির ঘটনা দেখা গেছে। তিনি আরও বলেন, নুসরাত জাহান ঐশীর ভাগ্য ভালো, কারণ লোকজন বের না হলে চোরেরা বাঁচার জন্য ঐশীকে মেরে ফেলতে দ্বিধাবোধ করতো না। কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি মীর মোশাররফ হোসেন জানান, গ্রেপ্তারকৃত দুই চোর আন্তঃজেলা চোরদলের সক্রিয় সদস্য।