Print

অন্যায় দেখে প্রতিবাদ করতে চাইলেও পারে না
বিডিনিউজডেস্ক.কম  তারিখঃ ১১.০৮.২০১৫

বাংলাদেশের রাজধানী শহর কি আসলেই ঢাকা? মাঝে মাঝে মনে হয় এর মধ্যে নিশ্চয় কোন ভুল আছে! বর্তমানের ঢাকা শহর কখনই একটি দেশের আদর্শ রাজধানী হতে পারে না।রাস্তায় বের হলে খুব কম সময়ই মানুষ তার গন্তব্যস্থলে পৌছাতে পারে(যদি সে নির্দিষ্ট সময়ের অন্তত ২/৩ ঘন্টা আগে বের না হয়) এমনটা কেন হবে?

দেশের জনগণের সংখ্যা বাড়ছে বলে? না এটা শুধুমাত্র কারণ হতে পারে না,এটা কেবলই একটি সমস্যা হতে পারে তাই বলে কি সমস্যা থেকে বের হওয়ার কোন যথাযথ সমাধান নেই? অবশ্যই আছে তবে সরকারের হয়ে যারা প্রতিনিধিত্ব করছেন তারাই আসলে নিজেদের লাভের জন্য সাধারণ মানুষকে পিছিয়ে দিচ্ছেন সেই সাথে লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত এই সোনার বাংলাদেশকেও। যেখানে দীর্ঘ যানজটেই সাধারণ মানুষ তার কাজের চেয়ে রাস্তায় বসেই তার মূল্যবান সময় ব্যায় করছে সেখানে সেই দেশের অবস্থা ক্রমাগত খারাপ ছাড়া কোনভাবেই ভাল কিছু আশা করা যায় না।এবং এর সাথে সম্পৃক্ত আরও একটি বিশেষ লক্ষণীয় সেটা হল-প্রতি বছর উন্নয়নের কাজে সব এলাকার সম্মানিত এমপি যারা আছেন তারা তাদের এলাকার উন্নয়নে মোটা অংকের বাজেট সরকারকে দেখান এবং সেটা সংসদ থেকে পাশও হয় কিন্তু প্রকৃত অর্থে তার কোন সুবিধাই সাধারণ মানুষ পায় না।এসব করে দেশের মানুষকে বোকা আর বোবা বানিয়ে রাখা হচ্ছে নয় কি? ঢাকা শহরের কিছু প্রধান সড়ক সহ বিভিন্ন এলাকার বেশিরভাগ রাস্তাগুলো চলাফেরার অযোগ্য,এবং সেটা বছরের পর বছর একই রকম হয়ে আছে। মাঝে মাঝে আবার দেখা যায় রাস্তা ঠিক করার নামে অন্য এক নাটক,এ যেন ফাটা দেয়ালে নতুন রং করে ফেটে যাওয়া দেয়াল লুকানোর হাস্যকর চেষ্টা! এবং মাস যেতে না যেতেই আগের হালে ফিরতে বাধ্য এলাকার রাস্তাগুলো। আর রাস্তার পাশে জমে থাকা নোংরা আবর্জনার স্তুপ তো প্রায় দেখা যায়!যার প্রভাবে বিভিন্ন রোগ-ব্যাধি নিমিষেয় ছড়াতে পারে!এখন প্রশ্ন হল জনগণের সেবার কাজে যে টাকা সরকার বরাদ্দ করে সেই টাকা কোথায় যায়? আদৌ কি সাধারণ মানুষ তার সঠিক অধিকার নিশ্চিত করতে পারবে? প্রশ্ন রেখে দিলাম।মানুষের কল্যাণের জন্য যারা প্রতিনিধি হয়ে কাজ করার নাম করে আছেন আসলেই কি এর কোন দরকার আছে? বা এমন প্রতিনিধিত্ব কিসের জন্য ? এই ক্ষমতা কি মানুষের কল্যাণের আশায়?নাকি মানুষের সব অধিকারটুকুও কেড়ে নেওয়ার আশায়? আর সাধারণ মানুষ তো এক কথায় জিম্মি হয়ে আছে অসাধু ক্ষমতার কাছে! চাইলেও তারা কিছু বলতে পারে না। কেউ যেন শোনার নেই সমস্যার কথা! নির্বিকার জনগণ! মুখে কুলুপ এটেঁ দিয়েছে,কেউ কোন অন্যায় দেখে প্রতিবাদ করতে চাইলেও পারে না,করতে গেলে হয়তো তার পরিবার তাকে হারিয়ে ফেলবে এই ভয়ে! এটাই গণতন্ত্র !
বিঃ দ্রঃ এটা শুধুমাত্র ঢাকা শহরের একটি সমস্য।এখানে সব সমস্যা ও সারা দেশের সমস্যা লিখতে গেলে ফেসবুকে সম্ভব নয় আরও একটি বাংলাদেশ লাগবে। সবশেষে চাই, সাধারণ মানুষের প্রতিনিধিদল মানুষের কল্যাণেই কাজ করুক ও পরিপাটী ,সুন্দর একটি দেশ গড়তে সহায়তা করুক। যেমনটি চেয়েছেন ৭১ এর লাখ লাখ শহীদ।

--নাজনিন আখতার হ্যাপি