Print

কোটচাঁদপুরে রাইফেলের গুলিতে কনস্টেবল নিহত

বিডিনিউজডেস্ক ডেস্ক | ১১.০৪.২০১৬

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর থানায় কর্তব্যরত পুলিশ কনস্টেবল সোলাইমান হোসেন (২৭) রাইফেলের গুলিতে নিহত হয়েছেন।

তিনি নিজের রাইফেলের গুলিতে নিহত হয়েছেন বলে দাবি করেছেন জেলা পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজবাহার আলী শেখ।

আজ সোমবার দুপুর ১টা ৪০ মিনিটের সময় থানায় প্রহরীর দায়িত্ব পালনের সময় এ ঘটনা ঘটে। নিহত সোলাইমান হোসেন যশোর সদর উপজেলার দাইতলা গ্রামের মোদাচ্ছের আলী মোল্লার ছেলে। তাঁর কনস্টেবল নম্বর ৯৪৯।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজবাহার আলী শেখ জানান, নিহত কনস্টেবল সোলাইমান হোসেন আজ দুপুরে থানার নিচতলায় সেন্ট্রি ডিউটি করার সময় ঘটনাটি ঘটে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, অসাবধানতার কারণে গুলি বের হয়ে যায়।

ঘটনার সময় উপস্থিত স্থানীয় সাংবাদিক মঈন উদ্দিন জানান, গুলির শব্দ শুনে তাঁরা নিচে নেমে আসেন এবং দেখেন কনস্টেবল গুলিবিদ্ধ হয়ে লুটিয়ে পড়ে আছেন। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে পুলিশ ভ্যানে করে কোটচাঁদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে বেলা ২টার দিকে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক গুলশানারা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

এর পরপরই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন ঝিনাইদহের পুলিশ সুপার মো. আলতাফ হোসেন। এদিকে কোটচাঁদপুর থানার দেয়ালে গুলির চিহ্ন লক্ষ করা গেছে। থানার নিচতলায় পুলিশ ব্যারাকের সামনে রক্তের দাগ লেগে আছে। স্থানটি চেয়ার দিয়ে ঘিরে রাখা হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত ২৯ ফেব্রুয়ারি সোলাইমান হোসেন কোটচাঁদপুর থানায় যোগ দেন। কোটচাঁদপুর থানার দ্বিতীয় কর্মকর্তা জয়নাল আবেদীন জানান, আজ দুপুরে সোলাইমান থানায় সেন্ট্রি ডিউটি করছিলেন। কিছু বুঝে ওঠার আগেই চেয়ারে বসে থাকাবস্থায় নিজের চায়নিজ রাইফেলের গুলিতে তিনি বিদ্ধ হন। গুলিটি তাঁর বুকের বাঁ পাশে বিদ্ধ হয়।

জয়নাল আবেদীন আরো জানান, এ সময় তিনি থানা ভবনের ওপরে বিশ্রামে ছিলেন। গুলির শব্দ শুনে নিচে নেমে এসে দেখেন কনস্টেবল সোলাইমান গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। সহকর্মীরা এ ঘটনায় কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে পড়েন।

আজ বেলা সাড়ে ৩টার দিকে নিহতের লাশ ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য নেওয়া হয়েছে।