Print

সিরিয়ার নতুন উদ্যোগে জাতিসংঘের সমর্থন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক  | তারিখঃ  ১৯.০৮.২০১৫

জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ গত সোমবার সিরিয়া ইস্যুতে নতুন করে শান্তি আলোচনায় বসতে সম্মত হয়েছে।

দামাস্কাসের ঘনিষ্ঠ মিত্র রাশিয়াসহ সবক’টি সদস্য রাষ্ট্রের গৃহীত পদক্ষেপ অনুসারে সিরিয়ার শান্তি আলোচনায় প্রথমবারের মতো একমত হলো সংস্থাটি। খবর এএফপি। ফ্রান্সের উপরাষ্ট্রদূত আলেক্সিস লামেক এ ঘটনাকে ‘ঐতিহাসিক’ বলে উল্লেখ করেছেন। তবে ভেনিজুয়েলার রাষ্ট্রদূত রাফায়েল রামিরেজ এ সিদ্ধান্তকে ‘খুবই বিপজ্জনক’ আখ্যা দিয়ে জানান, এ পরিকল্পনার ফলে সিরিয়ার আত্মনিয়ন্ত্রণের অধিকার খর্ব হতে পারে। জাতিসংঘের বিশেষ দূত স্টেফান ডি মিস্টুরা গত মাসে এ নতুন শান্তি আলোচনার রূপরেখা উপস্থাপন করেন। এর আগে সিরিয়া ইস্যুতে ফ্রান্সের দেয়া ১৬ দফার প্রস্তাব নিয়ে পরিষদে আলোচনা চলছিল। আগামী সেপ্টেম্বর থেকে নিরাপত্তা ও সুরক্ষা, সন্ত্রাস প্রতিরোধ, রাজনৈতিক এবং আইনি সমস্যা ও পুনর্গঠন— চারটি পর্বে বিভক্ত হয়ে এ শান্তি আলোচনা প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। চার বছর ধরে চলে আসা সিরিয়া যুদ্ধে প্রায় ২ লাখ ৪০ হাজার লোক এ পর্যন্ত নিহত হয়েছে। সিরিয়ার জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন ঘটবে এমন একটি রাজনৈতিক রূপান্তরের মাধ্যমে এ যুদ্ধ বন্ধ করতে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণের জন্য সহযোগী-সদস্য রাষ্ট্রগুলোর প্রতি আহ্বান জানায় নিরাপত্তা পরিষদ। নতুন প্রস্তাবে পূর্ণ নির্বাহী ক্ষমতাসম্পন্ন একটি একীভূত পরিচালনা পরিষদের ধারণা দেয়া হয়েছে। সরকারি কর্মকাণ্ড পরিচালনার বিষয়টি নিশ্চিত করে পারস্পরিক সমঝোতার মাধ্যমে এ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা যেতে পারে। তবে বর্তমান প্রেসিডেন্ট বাসার আল আসাদের ভবিষ্যৎ নিয়ে কোনো নির্দিষ্ট মন্তব্য করা হয়নি। পশ্চিমা সরকারগুলো এক রকম নিশ্চিত করেই বলছে, নতুন করে শান্তি আলোচনার ফলে সম্ভাব্য পরিবর্তনগুলো আসাদের ক্ষমতাচ্যুতির কারণ হতে পারে। এর আগে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ সিরিয়ায় চলমান সংকটকে ‘বিশ্বের সর্ববৃহৎ মানবাধিকার সংকট’ বলে আখ্যা দেয়।