Saturday 29th of April 2017

সদ্য প্রাপ্তঃ

*** শিবগঞ্জে ‘জঙ্গি আস্তানায়’ নিহত চারজনের লাশ বেওয়ারিশ হিসেবে দাফন * রাজশাহীতে অফিসার্স মেসে সহকারী পুলিশ কমিশনারের গলায় ফাঁস দেওয়া লাশ * যুক্তরাষ্ট্রে চিকিৎসাধীন আবৃত্তিশিল্পী মুক্তিযোদ্ধা কাজী আরিফ ক্লিনিক্যালি ডেড, বলেছেন তার মেয়ে * গাজীপুরের শ্রীপুরে ট্রেনের ধাক্কায় বাবা-মেয়ে নিহত * দিনাজপুরে চাল কলে বয়লার বিস্ফোরণে আহত আরও একজনের মৃত্যু, মোট নিহত ১৬ * পটুয়াখালীতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর উপস্থিতিতে জলদস্যু আলিফ ও কবিরাজ বাহিনীর আত্মসমর্পণ * ঝড়ে সিলেট স্টেডিয়ামের ব্যাপক ক্ষতি, ভেঙে পড়েছে অবকাঠামোর প্রায় এক-তৃতীয়াংশ কাচ * প্রেসিডেন্ট পদে প্রার্থী হওয়ার সম্ভাবনা নাকচ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক ফার্স্ট লেডি মিশেল ওবামা

Bangladesh Manobadhikar Foundation

Khan Air Travels

বর্জ্য অপসারণে নেই সিলেটবাসীর উদ্যোগ

বিডিনিউজডেস্ক ডেস্ক | ২৮.০৩.২০১৬

সিলেট নগরের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত সুরমা নদী পারাপারের জন্য আটটি খেয়াঘাট রয়েছে।

এর একটি হচ্ছে নগরের মাছিমপুর অংশে। কিন্তু দিনের পর দিন সে ঘাটে স্থানীয় লোকজন ময়লা-আবর্জনা ফেলায় ঘাটটি রীতিমতো ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। বর্জ্য পচে-গলে সারাক্ষণ দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। এ কারণে পরিবেশ দূষিত হচ্ছে।
ঘাট-লাগোয়া নদীতীরের স্থানীয় ছয়জনের অভিযোগ, ঘাটের পাশেই সবজি, মাছ ও রকমারি দ্রব্যের একটি হাট রয়েছে। সেখানকার ব্যবসায়ীরা তাঁদের উচ্ছিষ্ট ও পরিত্যক্ত ময়লা-আবর্জনা নদীতীরে ফেলছেন। এমনকি পাশের বাসিন্দারাও দিন-রাত আবর্জনা ফেলে নদীদূষণ করছেন। তবে সিটি করপোরেশন এসব বন্ধে কার্যকর কোনো ভূমিকা রাখছে না।
গতকাল রোববার সকালে সরেজমিনে দেখা গেছে, ঘাটের সিঁড়ির শুরু থেকেই ময়লা-আবর্জনার স্তূপ তৈরি হয়েছে। কলার কাঁদি, পচে যাওয়া সবজি, রেস্তোরাঁর উচ্ছিষ্ট খাবার, বোতল, পলিথিন ও প্লাস্টিকজাত দ্রব্য, পরিত্যক্ত নানা সামগ্রী স্তূপের মধ্যে রয়েছে। এসব আবর্জনা গড়িয়ে নদীর পানিতে গিয়ে মিশছে। মশা-মাছি উড়ছে।
মাছিমপুর এলাকার বাসিন্দা খায়রুল মিয়া বলেন, সিঁড়ির দুই পাশের আবর্জনা ঠেলে নদী ব্যবহারকারীদের ওঠানামা করতে হয়। বিশ্রী দুর্গন্ধে নাক চেপে চলাচল করতে হয়। আর পাশের পাড়া-মহল্লার নারীরা ময়লার মিশ্রণযুক্ত নদীর ওই পানি ব্যবহার করায় প্রায়ই পানিবাহিত নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে।
গৃহিণী আকবুরুন্নেসা বলেন, নদীতীরে যত্রতত্র আবর্জনা ফেলে পরিবেশ দূষণ করায় এখানকার বাসিন্দাদের স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি হচ্ছে। নদীতীরের সৌন্দর্যও এতে বিনষ্ট হচ্ছে।
নাগরিক মৈত্রী সিলেটের আহ্বায়ক সমরবিজয় সী শেখর বলেন, স্থানীয়দের স্বাস্থ্যঝুঁকির বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনায় নিয়ে সিটি করপোরেশনের কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করা জরুরি।
সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এনামুল হাবীব প্রথম আলোকে বলেন, সুরমা নদীর মাছিমপুর অংশে বর্জ্য ফেলে নদী দূষণ করার বিষয়টি দ্রুততার সঙ্গে খোঁজ নিয়ে কার্যকর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কেউ যেন ভবিষ্যতে সেখানে ময়লা-আবর্জনা না ফেলে, সে জন্য একটি সতর্কতা-সংবলিত সাইনবোর্ডও প্রয়োজনে সাঁটিয়ে দেওয়া হবে।