মুদ্রণ


বিডিনিউজডেস্ক.কম

তারিখঃ ১৯.০৭.২০১৫ 

বাইরে বের হলে আমাদের পদ-যুগল সব থেকে বেশি ঝক্কি পোহায়। বর্ষায় ময়লাকাদা পানি পায়ে লেগে প্রায়ই পায়ে নানান ধরনের সমস্যা দেখা দেয়।

এর মধ্যেচুলকানি, ফুসকুড়ি, ফোসকাইত্যাদি ধরনের চর্ম রোগের সমস্যা বেশি হয়। সাধারণত বর্ষায় ফাংগাস আক্রমণের কারণেইপায়ের আঙ্গুলের মাঝে ইনফেকশন হয়ে থাকে। এই সমস্যা এড়াতে পা সব সময় শুকনা রাখারচেষ্টা করতে হবে।বর্ষায় পাভিজে যাওয়াটাই স্বাভাবিক। তবে এ সমস্যা থেকে কিছুটা মুক্তি পাওয়া যাবে যদি পায়েরআঙ্গুলের ফাঁকে পেট্রোলিয়াম জেলি লাগিয়ে রাখা যায়। এরপরও যদি পায়ে ফাংগাস দেখা দেয় তাহলে অ্যান্টি ফাংগাল বিভিন্ন ধরনের মলম এবং ক্রিমপাওয়া যায় সেগুলো ব্যবহার করতে হবে। আর বেশি সমস্যা হলে অবশ্যই চর্মরোগ বিশেষজ্ঞেরপরামর্শ নিয়ে চিকিৎসা করাতে হবে। বর্ষায় পায়ের বিশেষযত্ন নেয়া জরুরি। এই বিষয়ে আজকের পরামর্শ বৃষ্টিরসময় না চাইলেও পায়ে পানি লেগে যায়। তাই পা বন্ধ জুতা পরেঘর থেকে বের হওয়া উচিত। এটা সম্ভব না হলে, বাসায় ফেরার সঙ্গে সঙ্গেই পা ভালোমতো ধুয়ে শুকনাকরে মুছে ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নিতে হবে। আর প্রতিসপ্তাহে পেডিকিউর করানো উচিত। এতে পা এবং নখের ভিতরসঠিকভাবে পরিষ্কার করা হয়। বাইরেথেকে ঘরে ফিরে হাল্কা গরম পানিতে শ্যাম্পু এবং অল্প পরিমাণেখাবার সোডা মিশিয়ে পা কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখতে হবে। এরপর ভালোমতো পা মুছে ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নিন। বর্ষায় পায়ের নখ বড় নারাখাই ভালো। আর যদি বড় রাখাও হয় তাহলে খুব ভালোমতো নিয়মিত পরিষ্কার করে নিতে হবে।কারণ নখের ভিতরে কাদা এবং ময়লা পানি জমে থাকলে ব্যাক্টেরিয়া এবংফাংগাল ইনফেকশন হতে পারে। এক্ষেত্রে পা হালকা গরম পানিতে ভিজিয়ে রেখে নেইল ব্রাশ দিয়ে ঘষে পরিষ্কার করে নিতেহবে। নখের ভিতরেও ভালোমতো পরিষ্কার করতে হবে। সঠিকভাবে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকলে এই বর্ষাতেও পায়েরবিভিন্ন সমস্যা থেকে রেহাই পাওয়া যাবে।