Nabodhara Real Estate Ltd.

Khan Air Travels

Bangadesh Manobadhikar Foundation

বিডিনিউজডেস্ক.কম

তারিখঃ ২৯.০৫.২০১৫

মাথাব্যথা একটি ভয়াবহ যন্ত্রণার নাম। কারণ মাথাব্যথা এমন একটি জিনিস যা আপনার স্বাভাবিক চিন্তা ক্ষমতাও কমিয়ে দিতে পারে। মাথাব্যথা থাকলে তা নিয়ে কোনো কিছুই করা সম্ভব হয়ে উঠে না।

এমনকি, তখন একটু বিশ্রাম নিলেও এই যন্ত্রণা থেকে রেহাই পাওয়া যায় না। সাধারণত, অতিরিক্ত টিভি, কম্পিউটার বা মোবাইল ফোন ব্যবহারের কারণে, অতিরিক্ত রোদের কারণে, বৃষ্টির পানি মাথায় পড়লে এবং যাদের মাইগ্রেনের সমস্যা রয়েছে তাদের মাথাব্যথায় ভুগতে দেখা যায়। কিন্তু আরও একটি কারণে হতে পারে মাথাব্যথা, সেটি হলো কিছু মাথাব্যথার উদ্রেককারী খাবার খাওয়া। অবাক হলেও সত্যি কিছু খাবার খাওয়ার কারণে প্রতিনিয়ত আপনার মাথাব্যথার সমস্যা বেড়েই চলেছে।

১) চকলেট:অনেকেই চকলেট খেতে পছন্দ করেন। কিন্তু চকলেট মাথাব্যথা হওয়ার অন্যতম প্রধান একটি খাবার হিসেবে ধরা হয়। দ্য ইন্টারন্যাশনাল হেডেক সোসাইটির একটি গবেষণায় দেখা যায়, চকলেটের কোকোয়া মাথাব্যথার উদ্রেক করে।

২) কফি: কফি পানের ফলে মাইগ্রেনের মাথাব্যথা কমে তা ঠিক, কিন্তু অতিরিক্ত ক্যাফেইন দেহে গেলে তা মাথাব্যথার উদ্রেক ঘটায়। দিনে ৩ কাপের বেশি কফি পান করলে তা মাথাব্যথার জন্য দায়ী।

৩) চীজ: চীজে রয়েছে টায়রামাইন নামক একটি উপাদান যা চীজের প্রোটিন ভাঙার ফলে উৎপন্ন হয়। এই টায়রামাইন মাথাব্যথার উদ্রেক ঘটায়।

৪) ঠাণ্ডা খাবার: গবেষণায় দেখা যায় ঠাণ্ডা খাবার যেমন আইসক্রিম জাতীয় খাবারগুলো মাথাব্যথার জন্য দায়ী। বিশেষ করে যার মাইগ্রেনের সমস্যায় ভোগেন তাদের মাইগ্রেনের ব্যথার জন্য প্রধানত দায়ী আইসক্রিম ও এই ধরণের ঠাণ্ডা বা ফ্রোজেন খাবার।

৫) কলা: আশ্চর্য শোনালেও এটি সত্যি যে কলা মাথাব্যথার উদ্রেক ঘটায়। কলায় রয়েছে চীজের চাইতেও প্রায় ১০ গুণ বেশি টায়রামাইন যা এই মাথাব্যথার জন্য দায়ী।

৬) মরিচ: অতিরিক্ত মরিচ বা ঝাল ধরণের খাবারের কারণে মাথাব্যথার উদ্রেক হয়। কারণ মরিচের ক্যাপসাইসিন মাথাব্যথা উদ্রেককারী একটি উপাদান।

৭) দুধ: কোলিন এবং ক্যাসেইন নামক দুটি উপাদান দুধে বিদ্যমান। এই দুটি উপাদানই মাথাব্যথার জন্য দায়ী, বিশেষ করে মাইগ্রেনের ব্যথা।