Nabodhara Real Estate Ltd.

Khan Air Travels

Bangadesh Manobadhikar Foundation

বিডিনিউজডেস্ক.কম| তারিখঃ ২১.০৫.২০১৯ 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যানটিনে ১৩ মে'র হামলার ঘটনায় বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেত্রী জারিন দিয়া ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যার

চেষ্টা করেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। গতকাল সোমবার রাতে তাঁকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আজ মঙ্গলবার দুপুরে ওই হাসপাতাল ছাড়পত্র পেয়েছেন।

ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত ও প্রত্যাশিত পদ না পাওয়া নেতা-কর্মীদের ওপর হামলার ঘটনায় গতকাল সংগঠন থেকে একজনকে স্থায়ীভাবে ও চারজনকে সাময়িক বহিষ্কার করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। এর মধ্যে জারিন দিয়াকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে।

তবে জানা গিয়েছিল মধুর ক্যান্টিনে হামলার ঘটনায় আহতদের একজন ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় কমিটির কার্যকরী সদস্য জারিন দিয়া। দিয়ার কোমরের হাড় ভেঙে গিয়েছিল বলেও তিনি তার ফেসবুক হ্যান্ডেলে জানিয়েছিলেন। 

ফেসবুক স্ট্যাটাস দিয়ে তিনি অনেকগুলো ঘুমের ওষুধ খেয়েছেন। পরে তাঁকে পুলিশের সহায়তায় নম্বর ট্র্যাকিং করে সন্ধান পাওয়া গেলে উদ্ধার করে তাঁকে ঢাকা মেডিক্যা কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।’মঙ্গলবার দুপুর একটার দিকে জারিন দিয়াকে হাসপাতাল থেকে বাসায় নেওয়া হয়েছে। জ্ঞান ফিরলেও এই মুহূর্তে কথা বলার অবস্থায় তিনি নেই বলে জানিয়েছেন তার বন্ধুরা।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া বলেন, ঘুমের ওষুধ খেয়ে অসুস্থ অবস্থায় জারিন দিয়াকে গতকাল রাতে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। তাঁর ‘পাকস্থলী পরিষ্কার’ করা হয়। হাসপাতালের ৫০২ নম্বর ওয়ার্ডে তিনি ভর্তি ছিলেন। আজ দুপুরে তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

সাময়িক বহিষ্কৃত জারিন দিয়া নিজে মধুর ক্যানটিনের ঘটনায় আহত হয়েছেন দাবি করে পদবঞ্চিত ও প্রত্যাশিত পদ না পাওয়া অংশের নেতৃত্বে থাকা ছাত্রলীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক সাঈফ বাবু বলেন, ‘ব্যক্তিগত আক্রোশ থেকে জারিনকে বহিষ্কার করেছেন ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক।