মুদ্রণ


বিডিনিউজডেস্ক.কম

তারিখঃ ২৪.০৬.২০১৫

তারেক রহমানের নামে কিভাবে চারটি পাসপোর্ট ইস্যু হলো তা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট।তারেক রহমানের বর্তমান অবস্থান এবং তার পাসপোর্ট নবায়নের বিষয়ে পুলিশ ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিবেদন উপস্থাপনের পর  হাইকোর্ট এ বিষয়ে জানতে চান।


চারটি পাসপোর্ট ইস্যু ছাড়াও বিদেশে অবস্থান করে কিভাবে পাসপোর্ট নবায়ন করেছেন তা ২৭ জুলাইয়ের মধ্যে প্রতিবেদন আকারে উপস্থাপন করতে আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।মঙ্গলবার (২৩ জুন) বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।এর আগে ৭ জানুয়ারি এক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে আইনের দৃষ্টিতে পলাতক থাকায় দেশের সব ইলেক্ট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ায় বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বক্তব্য প্রচার ও প্রকাশ নিষিদ্ধ করেন হাইকোর্ট।ওইদিন ওই দুটি প্রতিবেদনও আদালত চেয়েছিলো। মঙ্গলবার আদালতে এসব প্রতিবেদন উপস্থাপনের পর এ আদেশ আসে।রিটের পক্ষে ৭ জানুয়ারি আদালতে শুনানি করেন, অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ূন, এস এম মুনীর, সাহারা খাতুন, শ ম রেজাউল করিম, সানজিদা খানম প্রমুখ।শুনানিতে শ ম রেজাউল করিম বলেন, তারেক রহমানের বক্তব্য সংবিধানের ৭ এর ক ও ৩৯ অনুচ্ছেদের লঙ্ঘন। সবোর্চ্চ আদালত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বাধীনতার ঘোষক বলে রায় দিয়েছেন। অথচ তারেক রহমান তাকে ‘পাকবন্ধু’ বলেছেন, যা আদালত অবমাননা।