Nabodhara Real Estate Ltd.

Khan Air Travels

Bangadesh Manobadhikar Foundation

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক | তারিখঃ ০৫.০৪.২০২১

অ্যান্ড্রয়েড ফোনের প্রতিটি অ্যাপ-ই ডিভাইসে ইনস্টলড অন্যান্য অ্যাপের নাম জানতে পারে।

এভাবে ব্যবহারকারীর স্পর্শকাতর ব্যক্তিগত তথ্য ফঁস হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। গুগল জানিয়েছে, মে মাস থেকে এ প্রক্রিয়ার ইতি টানবে তারা।
শুরুটা হচ্ছে প্লে স্টোর থেকেই। ডেভেলপারদের এখন থেকে ‘যথাযোগ্য কারণ’ জানিয়ে তারপর অন্যান্য অ্যাপের নাম সংগ্রহ করতে হবে। আপাতত অ্যান্ড্রয়েড ১১ অপারেটিং সিস্টেমে যে অ্যাপগুলো ‘কোয়্যারি অল প্যাকেজেস’ অনুমতি চায়, সেগুলোই শুধু ডিভাইসে সংরক্ষিত সব অ্যাপের তালিকা দেখতে পায়।

গুগল নিজেদের ডেভেলপার কর্মসূচী নীতি আপডেট করেছে। এর মধ্য দিয়ে অনেক অ্যাপের অনুমোদন সীমিত করে দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

“যে অ্যাপগুলোর মূল লক্ষ্য শুরু হওয়া, অনুসন্ধান করা বা ডিভাইসের অন্যান্য অ্যাপের সাহায্যে পরিচালিত হওয়া, সেগুলোকে ডিভাইসের অন্যান্য ইনস্টলড অ্যাপসের সুযোগ-যোগ্য দৃশ্যতা দেওয়া হতে পারে।”

ব্যাংকিং অ্যাপস এবং পি২পি ওয়ালেটের বেলায় ব্যতিক্রম হতে পারে। এ ধরনের অ্যাপগুলোকে বড় পরিসরে অন্য অ্যাপের নাম সংগ্রহ করতে দিতে পারে গুগল।

“যে অ্যাপগুলো নীতি বাধ্যবাধকতা মানতে ব্যর্থ হবে বা ‘ডিক্লেয়ারেশন ফর্ম’ জমা দেবে না, সেগুলোকে গুগল প্লে থেকে সরিয়ে দেওয়া হবে।” – উল্লেখ করেছে গুগল।

প্রতিষ্ঠানটি আরও জানিয়েছে, “এ ধরনের অনুমতির প্রবঞ্চনাপূর্ণ এবং অঘোষিত ব্যবহারের কারণে অ্যাপ বা ডেভেলপার অ্যাকাউন্ট বাতিল হয়ে যেতে পারে।”

গুগল চাইছে, যে অ্যাপগুলোকে অন্যান্য অ্যাপের সঙ্গে যোগাযোগ করতে হয়, সেগুলোর ডেভেলপাররা যাতে পুরো অ্যাপ তালিকা নেওয়ার বদলে অ্যাপ-অনুসন্ধান এপিআই ব্যবহার করে।

বিজনেস স্ট্যান্ডার্ডের প্রতিবেদন বলছে,‘কোয়্যারি অল প্যাকেজেস’ অনুমতি অ্যান্ড্রয়েড ১১-তে যোগ করা হয়েছিল, ফলে এটি শুধু অ্যান্ড্রয়েড ১১ এর এপিআই মাত্রাকে লক্ষ্য করছে, যা আদতে “এপিআই লেভেল ৩০”।