মুদ্রণ

বিডিনিউজডেস্ক.কম   
তারিখ:১৯.০৪.২০১৫   

নীলফামারীতে ফেন্সিডিল পাচার নিয়ে আওয়ামী লীগের সঙ্গে ছাত্রলীগের সাথে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। এসময় অস্ত্র প্রদর্শনের ঘটনাও ঘটে।

আওয়ামী লীগের ডোমার উপজেলার বোড়াগাড়ী ইউনিয়ন সেক্রেটারি মনজুর আহম্মদ ডন ছাত্রলীগের গোমনাতী ইউনিয়ন সভাপতি সুজনের বুকে পিস্তল ঠেকায়। এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে শনিবার সন্ধ্যার পরে জেলার ডোমার উপজেলার গোমনাতী বাজারের অদুরে তেতুলতলা মাদ্রসা মোড়ে এ ঘটনাটি ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার সন্ধ্যার আগে ডোমার উপজেলা শহরের আনজারুল, বিথান ও জাহেরুল নামের তিনজন মাদক ব্যাবসায়ী ভারত থেকে ফেন্সিডিল, ইয়াবা ও নানান জাতের মাদকের একটি বড় চালান নিয়ে গোমনাতি বাজারের দিকে আসছিলেন। এ সময় গোমনাতি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি সুজন তাদেরকে আটক করে। মাদকের চালান বহনকারীরা সুজনকে জানায় এ সব মালামাল বোড়াগাড়ী ইইনিয়ন আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি মনজুর আহম্মদ ডনের। এরপরেও সুজন মাদক বহনকারী ও মাদকের চালানটি ছেড়ে না দেয়ায় উভয়ের মধ্যে বাক বিত-ার সৃষ্টি হয়।
খবর পেয়ে ডন সন্ধ্যার পরে ঘটনাস্থলে পৌঁছে ছাত্রলীগ নেতা ডন সুজনের সাথে বাকবিত-ায় জড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে সুজনের বুকে পিস্তল ঠেকিয়ে ঘটনার নিস্পত্তি করার চেষ্টা করেন। খবরটি সুজনের অনুচরদের পাশাপাশি বিষয়টি এলাকাবাসীর নজরে এলে তারা ডনকে ঘেরাও করে। অবস্থা বেগতিক দেখে ডন কোনভাবে পালিয়ে বাঁচে। পরে বিক্ষুদ্ধ জনতা জাহেরুল নামের ডনের এক সহযোগীকে আটক করে। আটককৃত জাহেরুলকে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা তাদের দলীয় অফিসে নিয়ে যায়। রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত (রাত ৯ টা ৩০ পর্যন্ত) পর্যন্ত জাহেরুল আটক থাকলেও ঘটনাস্থলে পুলিশ বা আইন শৃংখলা রাক্ষাকারী বাহিনির কোন সদস্য যায়নি।
অপর একটি সুত্র জানায়, ঘটনাটি স্থানীয়ভাবে ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা চলছে। এ ব্যাপারে ডোমার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোয়াজ্জেম হোসেনের সাথে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেনি।